কুমিল্লায় নির্বাচনের জন্য বৈধ ৩২ প্রার্থী; বাতিল ৭, প্রত্যাহার ২

বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা রিটার্নি অফিসার মো: তোফাজ্জল হোসেন মিয়া মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই শেষে সাত প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন।

এ ছাড়া মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন দুই প্রার্থী।

এর ফলে কুমিল্লার ১১টি আসনের ৪১ প্রার্থীর মধ্যে ৩২ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ও বাহাল রইল।

মনোনয়নপত্র বাতিল সাত প্রার্থীর হলেন- কুমিল্লা-১ আসনের হাসান জামিল ও জিসান উদ্দিন, কুমিল্লা-৩ আসনের মো: ছলিম উল্লাহ, কুমিল্লা-৪ আসনের রাজি মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম, কুমিল্লা-৭ আসনের এম এ লতিফ এবং কুমিল্লা-১১ আসনের এইচএম সফিকুর রহমান ও মো: রেজাউল হুদা।

এছাড়া কুমিল্লা-৭ ও কুমিল্লা-১০ আসনের জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী লুৎফুর রেজা খোকন ও ডা. আলী আহমেদ মোল্লা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

সাত প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার কারন-
কুমিল্লা-১ দাউদকান্দি আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হাসান জামিল ঋণ খেলাপী থাকার কারণে মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করা হয়। একই আসনের জাতীয় পার্টির সুলতান জিসান উদ্দিনের মনোনয়নপত্রে ২০০ টাকা স্ট্যাম্পযুক্ত হলফনামা না থাকায় মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করা হয়।

কুমিল্লা-৩ মুরাদনগর আসনে স্বতন্ত্রী প্রার্থী মো: ছলিম উল্লাহ মনোনয়ন পত্রে ১ ভাগ ভোটার তালিকায় ভোটার সংখ্যায় ত্রুটি থাকায় তার মনোনয়ন বাতিল করা হয়।

কুমিল্লা-৪ দেবিদ্বার আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী রাজি মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম সরকারি সুযোগ সুবিধা গ্রহণ করা অবস্থায় মনোনয়ন পত্র দাখিল করায় তার মনোনয়ন বাতিল করা হয়।

কুমিল্লা-৭ চান্দিনা আসনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী এম এ লতিফ তার মনোনয়নপত্রে যে ১ ভাগ ভোটার তালিকা দাখিল করেছিলেন ঐ ভোটার তালিকা অসম্পূর্ণ থাকায় তা বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়।

কুমিল্লা-১১ চৌদ্দগ্রাম আসনে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী এ এইচএম সফিকুর রহমান ঋণ খেলাফী হওয়ায় এবং আয়কর রিটার্ণে সাক্ষর না থাকায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। স্বতন্ত্র প্রার্থী মো: রেজাউল হুদার মনোনয়নপত্রে মূল সাক্ষর না থাকায়, এফিডেভিট যথাযথ না হওয়ায় এবং স্ট্যাম্প মূল্য যুক্ত না থাকায় মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়।

মনোনয়নপত্র বাছাই শেষে কুমিল্লা জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মো: তোফাজ্জল হোসেন মিয়া জানান, যাদের মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে তারা ইচ্ছা করলে নির্বাচন কমিশনে আপিল করতে পারবেন।

নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য চূড়ান্ত ৩২ প্রার্থী
কুমিল্লা-১ (দাউদকান্দি-মেঘনা) আসনে ৬ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের সুবিদ আলী ভূইয়া, আবু জাহেদ সরকার মাখন, জামান সরকার ও নাঈম হাসান। বাদ পড়েছেন হাসান জামিল ও জিসান উদ্দিন।

কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস) আসনে ২ জন মনোনয়ন জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী আবদুল মজিদ, জাতীয় পার্টি (এরশাদ) প্রার্থী আমির হোসেন ভূইয়া।

কুমিল্লা-৩ (মুরাদনগর) আসনে ৭ জন মনোনয়ন পত্র জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম সরকার, জাতীয় পার্টি (এরশাদ) প্রার্থী জামাল উদ্দিন,স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন(আওয়ামলীগের বিদ্রোহী),আক্তার হোসেন, বাসুদেব সাহা ও আহসান আলম কিশোর। বাদ পড়েছেন মো: ছলিম উল্লাহ।

কুমিল্লা-৪ (দেবিদ্বার) আসনে ৪ জন মনোনয়ন জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী এবিএম গোলাম মোস্তফা, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) প্রার্থী অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, স্বতন্ত্র প্রার্থী রৌশন আলী মাস্টার(আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী)। বাদ পড়েছেন রাজি মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম।

কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনে ৩ জন মনোনয়ন পত্র জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) প্রার্থী অধ্যক্ষ প্রফেসর সফিকুর রহমান ও ইসলামী ফ্রন্টের জাহাঙ্গীর আলম জাবির।

কুমিল্লা-৬ (সদর) আসনে ৪ জন মনোনয়ন পত্র জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। জাতীয় পার্টির(এরশাদ) প্রার্থী হুমায়ুন কবির মুন্সী। স্বতন্ত্র প্রার্থী মাসুদ পারভেজ খান ইমরান(আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী) ও ন্যাশনাল আওয়ামীপাটি (ন্যাপ)’র মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ আলী ফারুক।

কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসনে ৩ জন মনোনয়ন পত্র জমা দেন। চূড়ান্ত একমাত্র প্রার্থী হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ। বাদ পড়েছেন এম এ লতিফ। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন লুৎফুর রেজা খোকন।

কুমিল্লা-৮ (বরুড়া) আসনে ৪ জন মনোয়নপত্র জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী নাছিমুল আলম চৌধুরী নজরুল, জাতীয় পার্টির প্রার্থী(এরশাদ) অধ্যাপক নুরুল ইসলাম মিলন, স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম ও খেলাফত মজলিসের প্রার্থী এমরান হোসেন।

কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনে ২ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী তাজুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির প্রার্থী (এরশাদ) ড.গোলাম মোস্তফা।

কুমিল্লা-১০ (সদর দক্ষিন-নাঙ্গলকোট) আসনে ২ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। চূড়ান্ত একমাত্র প্রার্থী হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী আ হ ম মুস্তফা কামাল। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন ডা. আলী আহমেদ মোল্লা।

কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম) আসনে ৪ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। চূড়ান্ত প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামীলীগের প্রার্থী মুজিবুল হক মুজিব ও স্বতন্ত্র জাকির হোসেন। বাদ পড়েছেন এইচএম সফিকুর রহমান ও মো: রেজাউল হুদা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।