কাদের মোল্লার রায়ের প্রতিবাদে কুমিল্লায় বিভিন্ন স্থানে ভাংচুর ও আগুন

জামায়াত নেতা কাদের মোল্লার রিভিউ খারিজ করে ফাঁসি রায় কার্যকর করার পর পরই কুমিল্লা জেলা পরিষদের প্রশাসক আলহাজ মো: ওমর ফারুকের বাসায় পেট্রল বোমা হামলা চালানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ২০ মিনিটের দিকে ২টি পেট্রল বোমা হামলা চালানো হয়।

এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা পরিষদের প্রশাসক আলহাজ মো: ওমর ফারুক জানান, জামায়াত শিবিরের কর্মীরাই এ হামলা চালিয়েছে। পেট্রল বোমা হামলার পর তার বাসার জানালার কাচ ভেঙ্গে যায় এবং আগুন ধরে যায়। লোকজন তাৎনিকভাবে পানি দিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলে । হামলার সময় তিনি ভিতরের কক্ষে অবস্থান করছিলেন। এর কিছু পরই টমচমব্রীজ এলাকায় পুলিশ বক্সে আগুন ধরিয়ে দেয়  শিবির কর্মীরা।
এছাড়া ওইসময় বৃহষ্পতিবার রাত ১০টার দিকে মহাসড়কের কুমিল্লার কালাকচুয়াতে কয়েকটি ট্রাকে অগ্নিসংযোগ ও ফিলিং স্টেশনে ব্যাপক ভাংচুর চালিয়েছে বিক্ষুব্দ জামায়াত-শিবির কর্মীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর করা হবে এমন খবরে বিক্ষুব্দ জামায়াত-শিবির কর্মীরা রাত ১০টার দিকে জেলার বুড়িচং উপজেলার কালা কচুয়া এলাকায় মহাসড়কে ঝটিকা মিছিল বের করে।

এসময় তারা কয়েকটি যানবাহন ভাংচুর করে এবং আগ্নি সংযোগ করে দু’টি ট্রাক জ্বালিয়ে দেয়। পরে বিক্ষুব্দ শিবির কর্মীরা মহাসড়কের পাশে ইস্টজোন নামে একটি ফিলিং স্টেশনে হামলা চালায় এবং সেখানে ব্যাপক ভাংচুর চালায় তারা।

পরে পুলিশ ও ফায়র সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনা স্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও ট্রাক দু’টি সম্পুর্ণ ভষ্মিভুত হয়ে যায়।
জেলা পরিষদ প্রশাসকের বাড়িতে পেট্রল বোমা হামলার খবর পেয়ে কুমিল্লা পুলিশ প্রশাসনের ৪টি টহল টিম পরিদর্শন করে।

লাকসামে আওয়ামী কাউন্সেলর মোশারফের সোনার বাংলা পার্নিচারের দোকেনে গভির রাতে আগুন লাগোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।