কোম্পানীগঞ্জে শিবির-পুলিশ সংঘর্ষে নিহত ৬, গুলিবিদ্ধ ১০

নোয়াখালী জেলার কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার বসুরহাটে জামায়াত-শিবিরের মিছিলে পুলিশের গুলিতে অন্তত ছয় জন নিহত হয়েছেন। শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে আবদুল কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরের প্রতিবাদ ও হরতাল সমর্থনে জামায়াত-শিবির মিছিল বের করে। পুলিশ মিছিলে বাধা দিলে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়লে চার পুলিশ আহত হয়। এক পর্যায়ে পুলিশ নির্বিচার গুলি করলে ছয় জন নিহত ও ১২ জন গুলিবিদ্ধ হয়।

নিহতরা হলেন- ছাত্রশিবিরের কর্মী আবদুস সাত্তার, সাইফুল ইসলাম, মতিউল ইসলাম ও রায়হান উদ্দিন। জামায়াতের কর্মী নূর হোসেন রাসেল ও মিশু।

অবশ্য জামায়াতের উপজেলা আমির মোশাররফ হোসেন পুলিশের গুলিতে সাত নেতাকর্মী নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন।

তবে স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তারা সংঘর্ষে চার পুলিশ আহত এবং তিনজন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ সময় বিক্ষুব্ধ লোকজন পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে লিপ্ত হয় এবং উপজেলা ভূমি অফিস এবং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আগুন দেয়।

পরে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের লোকজন জামায়াতের নেতাকর্মীদের দোকানপাট ও বাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করে।

পুরো এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পুলিশ ও র‌্যাবের পাশপাশি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।