মহেশখালীতে এক জেলেকে শারিরিক নির্যাতন,বিষপানে আত্মহত্যা

কক্সবাজারের মহেশখালীতে এক জলেকে শারিরিক ভাবে নির্যাতনের পর অপমানে বিষ পানে আত্মহত্যা করেছে এক যুবক। ঘটনাটি ঘটেছে মহেশখালী উপজেলার  মাতারবাড়ি ইউনিয়নের  সদ্দার পাড়া গ্রামে।
গত ১৩ ডিসেম্বর দুপরে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, মাতারবাড়ি ইউনিয়নের সর্দ্দার পাড়া গ্রামের  কামাল হোসেনের পুত্র আলমগীর হোসেন (২২)  স্থানীয়  মোক্তার আহমদের পুত্র শামসু বহদ্দারের নিকট জেলে হিসাবে কাজ করত।  বিগত ৩ মাস পূর্বে মালিকের অজান্তে অগ্রিম টাকা কড়ির হিসাব না দিয়ে চট্টগ্রাম শহরে চলে যায়। এদিকে গত ১৩ ডিসেম্বর সকালে জেলে আলমগীর হোসেন মাতারবাড়ি গ্রামের বাড়িতে আসে। খবর পেয়ে ফিশিং  ট্রলার মালিক জেলে আলমগীর হোসেনকে দুপুর ১২ টায় সদ্দার পাড়া দোকানের সামনে  ব্যাপক মারধর করে পরে ট্রলার মালিক সামসুর বদ্দারের বাড়িতে নিয়ে  শারিরিক নির্যাতন করে । পরে  ট্রলার মালিকের পুত্র কতৃক ১শত টাকা দিয়ে চিকিৎসা করতে বলে বাসায় তাড়িয়ে দেয়। এঘটনার পর বিকাল ২টায় দিকে আলমগীর হোসেন তার বাস্য়া গিয়ে মাকে শারিরিক অসুস্থার কথা বলে । মুহুর্তে মধ্যে ঢলে পড়ে।প্রতিবেশী লোকজন তার মুখে বিষের গন্ধ পেয়ে তাকে  দ্রুত চকরিয়া হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।এদিকে নিহতের বাবা কামাল  হোসেন তার ছেলেকে  টাকার জন্য মারধর করে ট্রলার মালিক কতৃক  বিষপানের কারনে মৃত্যু হয় দাবী করেন।  পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করেছে বলে জানান। এবিষয় নিয়ে স্থানীয় একটি মহল বিভিন্ন ভাবে ফায়দা লুটার চেষ্টা রয়েছে। এব্ং উক্ত মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে নানা রহস্য খুজে পাওয়া যাচ্ছে। এব্যাপারে মহেশখালী থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, ময়না তদন্তের রির্পোট পাওয়ার  পর বলা যাবে আসল ঘটনা উৎঘাটন হবে। আইনগত প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।