১৪ দিন পর লাকসাম-নোয়াখালী রেললাইনে ট্রেন চলাচল শুরু

পূর্বাঞ্চলীয় রেলওয়ের লাকসাম-নোয়াখালী রুটে ১৪ দিন পর  বুধবার দুপুর ২:২০টায় নোয়াখালী এক্সপ্রেস চালুর মাধ্যমে ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। এর আগে একটি ইঞ্জিন চালিয়ে রেললাইন রেকি করা হয়। এর আগে গত দু’সপ্তাহ ধরে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ১৮ দলীয় জোটের লাগাতার অবরোধে নাশকতার আশংকায় এ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখায় এ পথে যাতায়াতকারী যাত্রীসাধারণ দুর্ভোগে পড়ে।

জানা যায়, দু’সপ্তাহ ধরে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় এ রুটে যাতায়াতকারী যাত্রীরা দ্বিগুণেরও বেশী ভাড়া দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সড়ক পথে বিভিন্ন যানবাহনে গন্তব্যে পাড়ি দেয়। বিরোধী দলের হরতাল-অবরোধসহ সরকারি দলের পাল্টা কর্মসূচি চলাকালে লাকসাম-নোয়াখালী রুটের দৌলতগঞ্জ, নাথেরপেটুয়া, বিপুলাসারসহ অন্যান্য স্টেশনে পরপর হামলা-ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এছাড়া, কয়েকটি জায়গায় রেললাইনে অগ্নিসংযোগ, ফিশপ্লেট খুলে ফেলার চেষ্টাসহ গাছ ফেলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে অবরোধকারীরা। ইতিমধ্যে এ রুটের ৭টি স্পট ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। অবরোধকারীরা রেলওয়ে ব্রিজে অগ্নিসংযোগসহ ট্রেন আক্রান্ত হওয়ায় আতংকিত রেলওয়ে কর্মকর্তারা নাশকতা এড়াতে এ রুটে সাময়িকভাবে ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখে। ফলে এ রুটে নিত্য যাতায়াতকারী যাত্রীসাধারণ কয়েকগুণ ভাড়া বেশি দিয়ে অন্যান্য যানবাহনে চড়েন। অন্যদিকে, পণ্য পরিবহনে ব্যাঘাত ঘটায় সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা লোকসানের মূখে পড়েন আর সরকার হারায় রাজস্ব।

এ বিষয়ে লাকসাম রেলওয়ে জংশন স্টেশন মাস্টার দিদারুল ইসলাম জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে নাশকতা এড়াতে এ রুটে ট্রেন চলাচল রাখা হয়। বুধবার দুপুর থেকে পূনরায় ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। মাইজদি কোর্ট রেলস্টেশন মাস্টার পিতু রঞ্জন ভূঁইয়া বলেন, হরতাল-অবরোধে নাশকতা এড়াতে রাষ্ট্রীয় সম্পদ রক্ষায় এ রুটে কিছুদিন ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়।

লাকসাম রেলওয়ে থানার ওসি আহসান হাবীব জানান, রেলওয়ের নিরাপত্তায় পুলিশ ও নিরাপত্তা কর্মীরা দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছে। তবে বিশেষ কারণে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ওই রুটে সাময়িক ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখতে পারে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।