কক্সবাজার বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র নির্মাণে কাজের নামে ফাঁকিবাজি

কক্সবাজারের কলাতলীতে পাহাড় কেটে নির্মিত হচ্ছে কক্সবাজার বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের ৩৩/১১ কে.ভি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র নির্মাণের কাজ শুরু হতে চলেছে নানা অনিয়মের মধ্য দিয়ে। এমনকি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র নির্মাণের জন্য নির্ধারিত ওই স্থান নিয়েও উঠে এসেছে নানা অভিযোগ। নির্ধারিত জায়গাটি ব্যাক্তি মালিকানাধীন জায়গা হওয়ায় ওই জায়গার মালিক ভূমি অধিগ্রহণ নীতিমালা অনুসরণ করে হাইকোর্ট ডিভিশনে একটি মামলা দায়ের করে। যার মামলা নং- ১২/২০১০-১০১১। অন্যদিকে ‘আরবান প্রকল্প’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান ঢাকার ‘মাস ইন্টারন্যাশনাল’ নামের একটি টিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে কোন ধরণের টেন্ডার না ডেকেই কাজ শুরু করে দিয়েছে। এমনকি কোন পত্রিকাতেও এব্যাপারে দরপত্র আহ্বান করেনি। খোজ নিয়ে জানা যায়, কক্সবাজার সদর উপজেলার পি.এম.খালী, উপজেলা, কলঘর ও খরুলিয়াসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে চাষের জমি ও পাহাড় কেটে প্রতিদিন ডাম্পারের সাহায্যে অজস্র মাটি ভরাট করছে উক্ত জায়গায়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় ব্যাক্তিরা জানান, মাটি ভরাটের ব্যাপারে বাধা দিলে সংশ্লিষ্ট টিকাদাররা পরিবেশ অধিদপ্তরের প থেকে অনুমতি নিয়েই পাহাড় কেটে উক্ত জায়গাটিতে মাটি ভরাটের কাজ করছে বলে দাবী করে। স্থানীয়রা আরোও জানান, মতাসীন দলের একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট তাদের সহযোগীতা করে যাচ্ছে।

পাহাড় কেটে মাটি ভরাটের ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট টিকাদার ঢাকার মাস ইন্টারন্যাশনাল’র স্বত্ত্বাধিকারী সাইফুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি পাহাড় কাটার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, মাটি ভরাটের কাজ সাব কন্টাক্টারদের দিয়ে দিয়েছি। তারা কোন উৎস হতে মাটি দিচ্ছে তা তার দেখার বিষয় নয় বলে জানান।

এব্যাপারে কক্সবাজার বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মুস্তাফিজুর রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, নবনির্মিতব্য বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রটির স্থাপনা নির্মাণে কক্সবাজার বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কোন হাত নেই। এটি চট্টগ্রামের আরবান প্রকল্পের অধীনে কাজ চলছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।