তজুমদ্দিনে হরতাল ডেকে মাঠে নেই বিএনপি !

ঢাকায় কেন্দ্রিয় বিএনপি’র ভাইসচেয়ারম্যান মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দিন আহম্মেদকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে তজুমদ্দিনে বিএনপি’র পক্ষ থেকে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ঘোষনা দেয়া হলেও দলের কোন নেতা বা কর্মিদের মাঠে দেখা যায়নি। তবে পুলিশ সন্দেহ জনক হিসেবে ছাত্রদলের তিন কর্মিকে আটক করেছে।

এদিকে হরতালের প্রতিবাদে যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতা কর্মিরা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মিছিল সমাবেশ করেছে।  দলের কেন্দ্রিয় নেতা মেজর (অবঃ) হাফিজ গ্রেপ্তারের পর রাতে উপজেলা বিএনপি’র পক্ষ হতে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয়। ভোর থেকেই কোথাও কোন অপ্রীতিকর সংবাদ পাওয়া যায়নি। প্রতিদিনের মতো দোকান পাট খোলা ছিলো। বিএনপি ও অংগ সংগঠনের পক্ষ হতে কোন মিছিল সমাবেশের খবরও পাওয়া যায়নি। উপজেলার ফকির হাট ব্রিজের কাছে কয়েক যুবক রাস্তা অবরোধের চেষ্টা করলে আ’লীগ কর্মি ও পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ সেখান থেকে ৩ বিএনপি কর্মিকে আটক করে।

হরতালে দলের সিনিয়র কোন নেতাকে মাঠে দেখা যায়নি। অধীকাংশ নেতা-কর্মিই আছেন এলাকা ছাড়া। উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ন আহ্বায়ক আমিরুল ইসলাম বাছেদ জানান, ভোর থেকে ফকির হাট, সম্ভুপুর খাশের হাট এলাকায় বিএনপির কর্মিরা সড়ক অবরোধ ও টায়ার জ্বালিয়ে পিকেটিং করে। তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইচার্জ মাহবুবুর রহমান জানান, কোথাও কোন অপ্রিতীকর ঘটনা ঘটেনি। তবে সকাল ৯ টার সময় ফকিরহাট এলাকায় রাস্তা অবরোধ কালে রিয়াজ, শামছুল হক ও সাইফুলকে আটক করা হয়েছে।

অপরদিকে হরতালের প্রতিবাদে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতা কর্মিরা উপজেলা সদরে মিছিল ও সমাবেশ করেছে। আ’লীগ কার্যালয়ের সামনে হরতাল বিরোধী সমাবেশে বক্তব্য দেন উপজেলা আ’লীগ সম্পাদক আলহাজ্ব অহিদ উল্যাহ জসিম, সহ সভাপতি ফজলুল হক দেওয়ান, যুবলীগ সম্পাদক শহিদুল্যাহ কিরন, হেলাল উদ্দিন সুমন, স্বেচ্ছাসেবকলীগ আহ্বায়ক মহিউদ্দিন পোদ্দার, ছাত্রলীগ নেতা এম, নুরুন্নবী প্রমুখ।

অন্যদিকে সন্ধা শম্ভুপুর খাসের হাট আ’লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের প থেকে মিছিল করে দলীয় কার্যলয়ের সামনে এসে সমাবেশ করে।
পৃথক পৃথক সমাবেশে নেতৃবৃন্ধ বলেন, মেজর হাফিজ বিএনপিতে ঘাতক হিসেবে পরিচিত। দির্ঘদিন চুপচাপ থেকে হঠাৎ করে তিনি আবারো ১/১১’র কুশীলবদের নিয়ে সক্রিয় হতে শুরু করেছিলেন। মতায় থাকতেও তিনি কখনো এলাকায় শান্তি চাননি। আ’লীগ নেতা কর্মিসহ সংখ্যালঘুদের উপর বর্বর নির্যাতন চালিয়েছেন। তাই মেজর হাফিজের গ্রেপ্তারের সংবাদটি লালমোহন-তজুমুদ্দিনের মানুষের জন্য একটি আনন্দের দিন হতে পারে। দির্ঘদিন পরে ফিরে আসা শান্তি নষ্ট করতে বিএনপি হরতাল ডেকে জনরোষের ভয়ে পালিয়ে গেছে। বক্তারা ৫ জানুয়ারীর নির্বাচন নিয়ে কোন বিশৃঙ্খলা না করতে বিএনপি’র প্রতি হুশিয়ারী দেন। এছাড়া ভোট কেন্দ্রে গিয়ে জন সাধারনকে নির্বিঘেœ নৌকা প্রতিকে ভোট দেয়ারও আহ্বান জানান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।