কক্সবাজার শহর জামায়াতের অবস্থান কর্মসূচী ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত

১৮ দলীয় জোট ঘোষিত দেশব্যাপী সড়ক, নৌ, রেলপথ অবরোধ ও অবস্থান কর্মসূচীর প্রথমদিনে কক্্সবাজার শহর জামায়াতের উদ্যোগে ভোর থেকে শহরের বিভিন্নস্থানে সড়ক পথে অবস্থান কর্মসূচী পালন করে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা। এসময় কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান কর্মসূচী শেষে সকাল সোয়া ৯ টায় শহরের ফজল মার্কেট থেকে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। শহর জামায়াতের আমীর অধ্যাপক আবু তাহের চৌধুরীর নেতৃত্বে মিছিলটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কালুর দোকান স্টেশনে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, আ’লীগের জঙ্গিপণা ও সন্ত্রাসী চরিত্র জাতির সামনে আবারো প্রকাশ হয়ে পড়েছে। জননিরাপত্তার কথা বলে বিরোধীদলের কর্মসূচী ঠেকাতে দলীয় ক্যাডারদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়ে সুপ্রিম কোট আইনজীবিদের উপর ন্যাক্কারজনক হামলা করেছে আ’লীগ ও তার অঙ্গসংগঠন।

দেশকে  জঙ্গী ও সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যে পরিণত করেছে আ’লীগ। গণতন্ত্রকে পুলিশ আর র‌্যাব দিয়ে দমন করে দলীয় সন্ত্রাসীদের পুলিশ প্রটেকশনে বিরোধীদল দমনের লাইসেন্স দিয়ে সরকার জনগণের সাথে প্রতারণামূলক আচরণ করছে। জাতীয় প্রেস কাব ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উপর হামলাও আ’লীগের সন্ত্রাসী চেহারার প্রকাশ ঘটেছে।

মালিবাগে শিবিরের শান্তিপূর্ণ মিছিলে গুলি করে শিবিরকর্মী মনছুরকে হত্যা করছে। জননিরাপত্তার জন্যে বিরোধীদল নয় বরং আ’লীগ ও তার অঙ্গসংগঠনই হুমকি। আমরা উক্ত ঘটনা সমুহের  প্রকৃত দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি এবং শিবিরকর্মী হত্যাকারী দায়ি পুলিশের অবিলম্বে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

আগামীতে শেখ হাসিনা সরকার পতনের আন্দোলনে সংগ্রামী ভূমিকা পালনের জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান বক্তারা। শহর জামায়াতের সেক্রেটারি সাইদুল আলমের পরিচালনায় মিছিলোত্তর সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন জেলা শিবির সভাপতি দিদারুল ইসলাম, শহর শিবির সভাপতি আনম হারুণ, জেলা সেক্রেটারি মাহফুজুল করিম, শহর জামায়াত অর্থ সম্পাদক নুরুল আমিন, জামায়াতনেতা অ্যাডভোকেট আমিনুল হক প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।