শুধু ১টি ভ্যান, ১ মটর সাইকেল, ১টি থানা তার নাম রামু থানা

কক্সবাজারের রামু থানায় পর্যাপ্ত সরকারী গাড়ী না থাকায় আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক বাঁধাগ্রস্ত হচ্ছে পুলিশ। থানায় ২টি মাত্র গাড়ি রয়েছে ১টি পুলিশ ভ্যান, অপরটি মোটর সাইকেল। সে গুলোও  অনেক পুরাতন ক্রটিপূর্ণ। যার কারণে ভিআইপি ডিউটি, টহলদান, জরুরী মুহুর্তে ঘটনাস্থলে পৌঁছানো, অভিযান পরিচালনাসহ সার্বিক পুলিশী ব্যবস্থাপনা ও কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। সরকারী ভাবে গাড়ী বরাদ্ধের জন্য  সংশিষ্ট  উর্ধ্বতন কর্তৃপরে কাছে বারবার আবেদন নিবেদন করা স্বত্ত্বেও কার্যকরি কোন পদপে গ্রহন করা হয়নি।

জানা গেছে ভৌগলিক অবস্থানের দিক দিয়ে জেলার সব চেয়ে বি¯তৃত ও দুর্গম এলাকা বেষ্টিত রামু উপজেলা। ১১টি ইউনিয়নের প্রায় ৫ ল মানুষের দুঃসময়ে নিরাপত্তা নিশ্চিতে জনবল ও পরিবহন ব্যবস্থা অতি নগণ্য। দীর্ঘদিন যাবৎ পুলিশ ভ্যান অপ্রতুলতার কারণে ঘটে যাওয়া চুরি, ডাকাতি, রাহাজানি, লুটপাঠ, সহিংসতা ও অগ্নিকান্ডে পুলিশী পদপে দ্রুত গ্রহন করা সম্ভব না হওয়ায় জনসাধারণের জানমালের অপূরণীয় তি সাধিত হয়ে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন ঘটনার প্রেেিত রামু উপজেলায় সরকারী, বেসরকারী, দেশিবিদেশি ভিআইপিদের পদচারনা অভাবণীয়। ভাড়ায় চালিত গাড়ীর মাধ্যমে পুলিশের গুরুত্বপূর্ণ কর্মকান্ড পরিচালনা করতে গিয়ে পুলিশ হিমশিমে পড়তে হয়।

রামু থানার এস আই এনামুল হক জানান, ডাবল কেবিন পুলিশ ভ্যান এই মুহুর্তে খুবই জরুরী।   রামু থানার ওসি অপ্পেলা রাজু নাহা জানান, থানায় পর্যাপ্ত গাড়ী না থাকায় প্রতিনিয়ত পুলিশী কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে এবং ভাড়ায় গাড়ী ক্রটিপূর্ণ ও ঠিক সময়ে পাওয়া যায়না, তারপরও স্থানীয় গাড়ি মালিকদের সহযোগীতায় কোন প্রকারে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি আরও জানান, থানায় পর্যাপ্ত সরকারী গাড়ি থাকলে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিশ্চিত করা সহজ হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।