ঝিনাইদহ-৩ আসনের ৭টি ভোট কেন্দ্র পুড়িয়ে দেওয়ায় ও নির্বাচনী সামগ্রী লুট করায় ভোট গ্রহন স্থগিত

ঝিনাইদহের  ৪টি সংসদীয় আসনের নির্বাচন সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়েছে। জেলার মোট ৫শত ৪১টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৭টি ভোট কেন্দ্রের ভোট গ্রহন স্থগিত করা হয়েছে। ব্যালট পেপার ছিনতাই ও পুড়িয়ে দেওয়ার কারনে এ সব কেন্দ্রে ভোট গ্রহন স্থগিত করা হয়। স্থগিতকৃত ভোট কেন্দ্র গুলো হচ্ছে ঝিনাইদহ-৩ আসনের মহেশপুর উপজেলার সামন্তা দাখিল মাদ্রাসা, গাড়াবাড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, রামচন্দ্রপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, পুরাতন কোলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নওদাগাঁ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র এবং কোটচাদপুর উপজেলার মামুনশিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কলাবাড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। সকাল থেকে ভোট কেন্দ্র গুলোতে ভোটারের উপস্থিতি খুবই কম দেখা গেছে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটার উপস্থিতি বাড়তে পারে বলে প্রিজাইডিং অফিসাররা জানান।

মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসিমা আক্তার ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার সেলিম রেজা জানান, মহেশপুর উপজেলার ৫টি ভোট কেন্দ্র আজ ভোরে দুর্বত্তরা হামলা চালিয়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে ব্যালট পেপারসহ নির্বাচনী সামগ্রী পুড়ে যায়। এ সময় তারা বেশ কিছু নির্বাচনী মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

এ দিকে কোটচাদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবপ্রসাদ পাল জানান, শনিবার রাতে ৫০/৬০ জনের একদল দুর্বত্ত মামুনশিয়া ও কলাবাড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে আগুন ধরিয়ে নির্বাচনী সামগ্রী পুড়িয়ে দেয় এবং ব্যালট পেপার ছিনতাই করে নিয়ে যায়। এ সময় তারা মামুনশিয়া ভোট কেন্দ্রের এস,আই মিলন, কনষ্টেবল জামিরুল ইসলাম ও আনসার সদস্য ওহেদুল ইসলামকে কুপিয়ে মারাত্বক জখম করে। তাদেরকে স্থানীয় কোটচাদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়েছে। ফলে এ দুটি কেন্দ্রেরও ভোট গ্রহন স্থগিত করা হয়। পরবর্তিতে ভোট গ্রহন করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।