মিরসরাইয়ে এক বছরে অর্ধশত অগ্নিকাণ্ড, ক্ষতি কোটি টাকার

মিরসরাই উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন এবং দুইটি পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় গেল বছরে ন্যূনতম অর্ধশত অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আর অগ্নিকাণ্ডগুলোতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কয়েক কোটি টাকা বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্তদের। অগ্নিকাণ্ডগুলোতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১২ জন। আর সহায়-সম্বল হারিয়ে নিঃস্ব হয়েছে সহস্রাধিক মানুষ।

উপজেলাটিতে নিজস্ব ফায়ার সার্ভিস স্টেশন না থাকায় আগুন লাগলে পাশ্ববর্তী সীতাকুণ্ড ও ফেনী থেকে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই পুড়ে যায় সবকিছু। উপজেলাটিতে বসবাসরত প্রায় ছয় লাখ মানুষের দাবি একটি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণের।

প্রতিটা নির্বাচনের সময় প্রার্থীরা নির্বাচিত হলে সর্বপ্রথম মিরসরাইতে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিলেও নির্বাচিত হওয়ার পর সেই প্রতিশ্রুতি ভুলে যান। তবে, নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি হিসেবে গত বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি উপজেলার সদর ইউনিয়নের মিরসরাই রেল স্টেশন সড়কের উত্তর তালবাড়িয়া এলাকায় এবং নির্মানাধীন মিরসরাই বেসিক শিল্প নগরীর পাশে একটি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন স্থানীয় এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।

গত বছর অনেক ঘটা করে মোশাররফ হোসেন ফায়ার স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে দু’দিন পর সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাজ শুরু করার কথাও জানিয়েছিলেন স্থানীয় সাংবাদিকদের। ফলে বহুল প্রতীক্ষিত ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটি শেষ পর্যন্ত তৈরি হচ্ছে- এমন আশার আলো এলাকাবাসীর মধ্যে জ্বলে উঠেছিল। কিন্তু অত্যন্ত ধীরগতির কাজের জন্য সেই আলোও এখন নেভার দিকে।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, গত ১২ জানুয়ারি উপজেলার ১ নম্বর করের হাট ইউনিয়নের পশ্চিম অলিনগর গ্রামের হেলু মিয়ার সওদাগর বাড়িতে একটি অগ্নিকাণ্ডে তিনটি বসতঘর পুড়ে ১৮ ভরি স্বর্ণালংকার এবং নগদ চার লাখ টাকা, আসবাবপত্র ও মোবাইল সেটসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

গত ১৩ জানুয়ারি উপজেলার মিঠাছরা বাজারের পার্শ্ববর্তী মান্দার বাড়িয়া এলাকার আব্দুল গনি মুন্সি বাড়িতে চারটি বসতঘর আগুনে পুড়ে যায়। এতে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, আসবাবপত্রসহ ইত্যাদি পুড়ে প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছিল।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি উপজেলার ৩ নম্বর জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের ছুটি খাঁ মসজিদ সংলগ্ন জোরারগঞ্জ আইডিয়াল একাডেমি স্কুলে এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এরপর ২৮ ফেব্রুয়ারি  রাতে উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের ইসলামাবাদ গ্রামে এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পাঁচ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত রহিমা বেগম দাবি করেন।

১২ মার্চ উপজেলার ৩ নম্বর জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের সোনাপাহাড় এলাকায় অবস্থিত নাহার এগ্রো গ্রুপের মিরসরাই পোল্ট্রি ফার্ম লিমিটেডের খাদ্য উৎপাদন কারখানায় রাতে এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আগুন নেভানোর সময় সাত শ্রমিক আহত হন। ঘটনায় প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন নাহার এগ্রো গ্রুপের কর্মকর্তারা।

১৪ মার্চ রাতে উপজেলার হিঙ্গুলী ইউনিয়নের পূর্ব হিঙ্গুলী গ্রামে পানের বরজে দুর্বৃত্তরা আগুন দেয় এবং একই এলাকায় ৫ অক্টোবর জহুরুল হকের বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তিনটি বসতবাড়ি পুড়ে প্রায় চার লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থরা। ৩০ আগস্ট উপজেলার মিঠানালা ইউনিয়নের রহমতাবাদ গ্রামে অগ্নিকাণ্ডে দুইটি বসতবাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

২৯ অক্টোবর উপজেলার ১৫ নম্বর ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের শেখের তালুক গ্রামে এক অগ্নিকাণ্ডে ঘর পুড়ে প্রায় পাঁচ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেন স্থানীয় ছাত্রলীগের কর্মী রিপন। এরপর, গত ১৪ ডিসেম্বর রাতে উপজেলার ২ নম্বর হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব হিঙ্গুলী গ্রামের হেঞ্জু সওদাগরের বাড়িতে ছাত্রদল নেতা জাহেদ হোসেন বাপ্পির পোল্ট্রি খামারে অগ্নিকাণ্ডে খামারে থাকা পাঁচ শতাধিক মুরগির বাচ্চা পুড়ে যায়। ক্ষতি হয় প্রায় দেড় লক্ষ টাকার।

এরপর, গত ১৬ ডিসেম্বর উপজেলার ২ নম্বর হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের জামালপুর গ্রামের আবু তাহেরের বাড়িতে বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে লেগে দুইটি বসতবাড়ি পুড়ে ২০ লক্ষ টাকারও বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন। সর্বশেষ, গত ২২ ডিসেম্বর রাতে উপজেলার ২ নম্বর হিঙ্গুলী ইউনিয়নের পশ্চিম হিঙ্গুলী এলাকার সালাদার বাড়িতে এক অগ্নিকাণ্ডে গ্যারেজে রাখা একটি মাইক্রোবাস এবং একটি ঘর পুড়ে যায়। এতে প্রায় ২৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত সালাদা।

এত ক্ষতির পরেও এত দেরিতে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে, আর তারপর কেন এত শ্লথ গতিতে কাজ চলছে? প্রসঙ্গে মিরসরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন বলেছেন, “ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপন এমপি মহোদয়ের দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টার ফসল। আমরা সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে এ ব্যাপারে বেশ তাগিদ দিচ্ছি।”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।