লাকসাম মাউথপাড়ায় বিএনপি-জামায়াত ও আওয়ামী লীগের সংঘর্ষ: আহত ৩০

কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভার উত্তরপশ্চিমগাও গ্রামের মাউথপাড়ায় বিএনপি-জামায়াত ও আ’লীগের নেতা-কর্মীদের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় উভয় গ্র“পের লোকজনের ২০টি বসতঘর ও ৫টি দোকানপাটে হামলা, আগুন, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পরে বহিরাগতরা সংঘর্ষে জড়ায়। নির্বাচনী জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয়রা জানায়।
জানা গেছে, নির্বাচনের জের ধরে পৌর এলাকার মাউথপাড়ায় দু’পরে নেতা-কর্মীদের কথা কাটাকাটির একপর্যায়ের তা রাজনৈতিক সহিংসতায় রূপ নেয়। গতকাল দুপুরে এ ঘটনায় ওই গ্রামের বিএনপি সমর্থক আবদুস ছাত্তারের বসতঘর, চা ও মুদি দোকানের টেলিভিশন, ফ্রিজ, আসবাবপত্র ভাংচুর, নগদ টাকাসহ মালামাল লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এ সময় পার্শ্ববর্তী ডাঃ আমির হোসেনের ফার্মেসি, আবদুস ছোবহানের মুদি দোকান, খোরশেদ ও কামালের মুদি দোকানে ভাংচুর করা হয়। একই সময়ে আ’লীগ কর্মী আবুল মিয়ার বসতঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর, লুটপাট ও আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। অপরদিকে, ভাংচুরের শিকার হয় ওই পাড়ার দুবাই প্রবাসী সবুজ মিয়ার ঘর, মৃত: আবদুর রশিদ, ছেরু মিয়া, মফিজ মিয়া, আবদুল খালেক, আবদুল কুদ্দুস, জিয়া, মিজান, জয়নাল, নুরু মিয়া, ছায়েদ, মীর হোসেন, কামাল হোসেন, আনোয়ার, জমির মিয়া, হাবিব, এমরানের বাড়িঘরে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। দুর্বৃত্তরা ঘরে থাকা আসবাব-তৈজসপত্র তছনছ ও নগদ টাকা এবং স্বর্ণালংকার লুটপাট করে। এ সময় জিয়া (৩৫), আনোয়ার (২৫), সোহেল (১৮), রাজ্জাক (২৪), তাহের (২০), সাইফুল (২৬), মমতাজ বেগম (৪০), লিটন (৩২), জাহাঙ্গীর (২৫), মিলন (২৫), সাফিয়া খাতুন (৮০), সালেহা (৪০), শামছুন্নাহারসহ (৬০) উভয় পরে প্রায় ৩০ জন আহত হয়। আহতদের লাকসাম ও কুমিল্লার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এতে য়তির পরিমাণ প্রায় ৫০ লাখ টাকা। আবারো সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে বলে স্থানীয় লোকজন জানায়। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।