রাজধানীতে ২২টি সোনার বারসহ আটক ১

সোমবার গভীর রাতে রাজধানীর পুরান ঢাকার রায়সাহেবের বাজার এলাকা থেকে ২২টি সোনার বারসহ একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

উদ্ধারকৃত ২ কেজি ৪শ গ্রাম ওজনের ওই সোনার আনুমানিক মূল্য প্রায় ১ কোটি টাকা।

আটককৃতের নাম কমল দাস (৩৮)।

পুলিশ বলছে, চোরাচালানের উদ্দেশ্যেই কমল দাস এ সোনা বহন করছিলেন।

তবে কণিকা জুয়েলার্স নামে একটি সোনার দোকানের স্বত্বাধিকারী সঞ্জয় পোদ্দার দাবি করছেন, কমল দাস তার দোকানের কর্মচারী। এসব সোনার বৈধ কাগজও তার রয়েছে।

অবশ্য মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত পুলিশকে বৈধ কোনো কাগজ দেখাতে পারেননি সঞ্জয়।

ওয়ারি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তপন কুমার চন্দ্র জানান, ‘সোমবার গভীর রাতে রায়সাহেবের বাজার এলাকায় কমলের গতিবিধি দেখে পুলিশের সন্দেহ হলে তার দেহতল্লাশী করা হয়। এ সময় তার পকেট থেকে স্কচটেপে মোড়ানো অবস্থায় ২২টি সোনার বার পাওয়া যায়।’

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কমল জানিয়েছেন, তিনি কণিকা জুয়েলার্সের কর্মচারী। সোনাগুলো মালিকের বলেও দাবি করেছেন তিনি।

এ ঘটনায় কণিকা জুয়েলার্সের কর্মচারী কমল দাস ও সঞ্জয় পোদ্দারের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে ওয়ারি থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

গভীর রাতে বিপুল পরিমাণ সোনা নিয়ে কর্মচারি কোথায়, কেন যাচ্ছিলেন এবং বৈধ কাগজ থাকা সত্ত্বেও কেন পুলিশকে এখনো দেখাতে পারেননি- সঞ্চয় পোদ্দারের কাছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি।

কমল কলকাতার কোনো চোরাচালানি চক্রের সঙ্গেও জড়িত থাকতে পারে বলে ধারনা করছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।