জমি জবর দখল ও সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মঠবাড়িয়ায় কৃষকের মানববন্ধন

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার ভেচকী গ্রামের ১৯ জন কৃষকের কৃষিজমি জবর দখল ও সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় কৃষকর ।
বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় মঠবাড়িয়ার ভেচকী গ্রামের কৃষিজমিতে ঘন্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে শতাধিক কৃষক অংশ নেন। এসময় নির্যাতিত কৃষকরা সম্প্রতি স্থানীয় প্রভাবশালী সিদ্দিকুর রহমান ও রুহুল আমীন গংদের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের হামলা ও অন্যায়ভাবে জমি দখলের প্রতিবাদ জানান।
মানববন্ধন শেষে ভেচকী নয়ারহাট বাজারে এক প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন,ভূক্তভোগী কৃষক এনামুল হক দুলাল,আব্দুর রহমান মাস্টার,আদম আলী,হালিম হাওলাদার ও আবদুস সাত্তার প্রমূখ।

নির্যাতিত কৃষকরা অভিযোগ করেন,স্থানীয় দুই প্রভাবশালী সিদ্দিকুর রহমান ও রুহুল আমীনসহ তাদের সহযোগিরা মিলে গ্রামের ১৯জন নিরীহ কৃষকের প্রায় ৪৮ দশমিক ৩৮ একর কৃষি জমি ও বসতির জমিতে ভূয়া ডিক্রি ও দলিলপত্র তৈরী করে দীর্ঘদিন ধরে মালিকানা দাবি করে কৃষকদের হয়রাণি করে আসছে।  গত ১৪ ফেব্রুয়ারী সিদ্দিকুর রহমান গংয়ের নেতৃত্বে ৫০/জন ভাড়াটে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা জমি দখল করা শুরু করলে কৃষকরা বাঁধা দেয়। এসময় সন্ত্রাসীরা ৬জন কৃষককে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এঘটনায় কৃষকরা মঠবাড়িয়া জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে মামলা দায়ের করে। পরে জমি দখলকারীরা কৃষকের নামে একটি সাজানো মামলা দায়ের করে উল্টো হয়রাণি করে আসছে।

কৃষকরা অভিযোগ করেন,এ সন্ত্রাসী হামলা ও জমি দখলের মামলা দায়ের করলেও পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেফতার করছেনা। কৃষকরা দাবি করেন গত ৪৮ বছর ধরে ডিক্রি ও কবলা দলিল মূলে ১৯জন কৃষকের দখলে থাকা জমি প্রবাশালীরা ভূয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে মালিকানা দাবি করে কৃষকদের হয়রাণি ও নির্যাতন চালাচ্ছে। ভূক্তভোগী কৃষকরা হয়রাণি ও নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচার দাবি জানিয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।