রায়পুরে যুবদলনেতার বিরুদ্ধে নিন্মমানের কংকর দিয়ে সড়ক নির্মানের অভিযোগ

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে যুবদলনেতা ও পৌরসভার কর পরিদর্শক ইকবাল হোসেন পাটোয়ারীর  বিরুদ্ধে নিন্মমানের কংকর দিয়ে ৬০ লাখ টাকা ব্যায়ে প্রায় ১০ কিলোমিটার সড়কের কাজ করার অভিযোগ উঠেঠে। উপজেলা প্রকৌশলী গত ৫ দিন আগে সড়কটি পূনঃ মেরামতের নির্দেশ দিলেও ওই নেতা না শুনে সড়কের কাজটি সম্পন্ন করেন । এতে প্রকৌশলীসহ এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

উপজেলা প্রকৌশল কার্যালয় সুত্রে জানাযায়, গত ১৫ মার্চ  স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ এলজিইডির তত্বাবধানে পীর ফজলুল্লাহ সড়কের শহরের ট্রাফিকমোড় থেকে কোরোয়া ইউনিয়নের মোল্লারহাট বাজার পর্যন্ত প্রায় ৬০ লাখ টাকা ব্যায়ে ৯.১৭৫ মিটার সড়কের পুনঃ সংস্কারের কাজ শুরু হয়। একাজটি ফয়সাল নামে লক্ষ্মীপুরের এক ঠিকাদার বিক্রি করে দেন রায়পুর পৌর যুবদলের আহবায়ক ও পৌরসভার কর পরিদর্শক ইকবাল হোসেন পাটোয়ারীর কাছে। ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী নিন্মমানের কংকর দিয়ে সড়ক নির্মান শুরু করেন। ১৮ মার্চ সকালে স্থানীয় বাসিন্ধাদের কয়েকজনের অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা প্রকৌশলী সরজমিনে পরিদর্শনে গেলে অভিযোগের সত্যতা পান। এবং দ্রুত সঠিক কংকর দিয়ে কাজ করার জন্য নির্দেশ দিয়ে যান।

স্থানীয় তসলিম উদ্দিন ও রহিম জানান, ওইসড়ক দিয়ে প্রতিদিন শতশত পরিবহনসহ এলাকাবাসীর যাতায়াত করতে হয়। বেহালদশা সড়কটি পুনঃ সংস্কার দেখে সবাই খুশি হয়েছিল। কিন্তু ঠিকাদারের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর অভিযোগ ও প্রকৌশলীর নির্দেশ অমান্য করে সড়কের কাজ শেষ করায় অমরা উদ্বিগ্ন রয়েছি। কারণ একমাস পর বর্ষা এলেই এসড়কটি চলাচলে আবারও অযোগ্য হয়ে পড়বে।

যোগাযোগ করা হলে ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী বলেন, লক্ষ্মীপুরের ফয়সল নামের এক ঠিকাদারের কাছ থেকে আমি কাজটি নিয়ে সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করি। একাজে কোন নিন্মমানের কংকর বা কোন অনিয়ম করা হচ্ছেনা বলে দাবি করেন।

উপজেলা প্রকৌশলী আক্তার হোসেন ভুইয়া বলেন, ঠিকাদার ইকবাল হোসেন পাটোয়ারীকে দ্রুত সঠিক কংকর দিয়ে কাজ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এব্যাপারে লেখালেখি না করার অনুরোধ জানান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।