গত ২৪ ঘণ্টায় গাজীপুরে পৃথক ঘটনায় পিতা-পুত্রসহ ১০ খুন

গাজীপুরে একই দিনে পৃথক ঘটনায় দুই পুত্র ও পিতাসহ ১০ জন খুন হয়েছেন। একই দিন এতগুলো খুনের ঘটনা নিয়ে জেলায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের ডেমরা গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষকালে প্রতিপক্ষের হামলায়  এক বৃদ্ধ ও তার দুই ছেলে খুন হয়েছে। এঘটনায় উভয় পক্ষের অন্তত ছয়জন আহত হয়েছে। নিহতরা হলো ওই উপজেলার ধনপুর গ্রামের মোন্তাজ উদ্দিন (৯০) ও তার দুই ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩৮) এবং সাইজুল ইসলাম (৩৩)। এঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

কালীগঞ্জ থানার এসআই রাজীব চক্রবর্তী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কালীগঞ্জ উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের ডেমরা গ্রামের ৩৫ শতক জমি নিয়ে বেশকিছুদিন ধরে স্থানীয় আলাউদ্দিন গংয়ের সঙ্গে ধনপুর গ্রামের মোন্তাজ উদ্দিন গংয়ের বিরোধ চলে আসছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরে উভয় পক্ষের লোকজন ডেমরা গ্রামের ওই বিবদমান জমিতে কাজ করতে গেলে দুই পক্ষের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে আলাল গংয়ের লোকজন দা, লাঠি, ছোরা নিয়ে প্রতিপক্ষের লোকদের ওপর হামলা চালালে উভয় পক্ষের মাঝে সংঘর্ষ বাধে। এতে প্রতিপক্ষের দায়ের এলোপাথাড়ি কোপে ঘটনাস্থলেই সাইজুল ইসলাম নিহত হয় এবং ৮ জন আহত হয়। আহতদের স্থানীয় কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর চিকিতসাধীন অবস্থায় মোন্তাজ উদ্দিন ও তার দু’ছেলে সাইফুল ইসলাম মারা যায়। এঘটনায় আহত নূরুল ইসলাম (৫০), কোহিনূর বেগম (৪০) অপরপক্ষের আনোয়ার হোসেনসহ (৩৫) ৬ জনকে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল ইসলাম ভুঁইয়া জানান, ওই গ্রামের আলাল উদ্দিন ও মমতাজ উদ্দিনের সাথে ৩৫ শতক জমি নিয়ে গত চার বছর ধরে বিরোধ চলে আসছে। সংঘর্ষেও ঘটনায় আলাল উদ্দিনকে (৪৫) আটক করা হয়েছে।

অপরদিকে পুলিশ ও এলাকাবাসি জানায়, শ্রীপুর উপজেলার বরমী নতুন বাসস্ট্যান্ডের কাছে একটি পরিত্যাক্ত ছাপড়া ঘরের ভেতর থেকে বৃহস্পতিবার দুপুরে জবাই করা এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে শ্রীপুর মডেল থানা পুলিশ। নিহতের নাম মেহেদী হাসান (১১)। তিনি বরমী বাজার এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে এবং স্থানীয় আল মদীনা কিন্ডারগার্টেনের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র। সায়েম বুধবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে তার বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। স্বজনরা রাতভর সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজাখুঁজি করে তাকে পায়নি। পরদিন এলাকাবাসি তার লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। নিহতের বাবা রফিকুল ইসলাম জানায়, পারিবারিক বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষরা সায়েমকে গলা কেটে হত্যা করেছে।

এদিকে, একই উপজেলার প্রহলাদপুর ইউনিয়নের কদমা গ্রামে স্বামীকে মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় বৃহস্পতিবার ভোর রাতে নিজ স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে ওই মাদক ব্যবসায়ি। এঘটনায় পুলিশ ঘাতক স্বামী খোরশেদ আলমকে আটক করেছে। নিহতের নাম মাকসুদা আক্তার ইভা (২০)।

শ্রীপুর মডেল থানার এসআই আব্দুল মালেক জানায়, প্রায় ৫ বছর আগে পার্শ্ববর্তী কালীগঞ্জ উপজেলার ফুলদিয়া গ্রামের আমিন উদ্দিনের কন্যা ইভার সঙ্গে শ্রীপুর উপজেলার কদমা গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলী দর্জির ছেলে খোরশেদ আলমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে মাদক ব্যবসাকে কেন্দ্র করে স্বামী ও স্ত্রীর মাঝে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরেই এ ঘটনা ঘটে। নিহতের থুতনির নিচে ও ঘাড়ের ডান পাশে কাটা দাগ এবং ডান কান ও ডান হাতে জখমের চিহ্ন রয়েছে।
অপর ঘটনায়, শ্রীপুরের পাঁচুলটিয়া গজারী বন থেকে অজ্ঞাত এক মহিলার (২৫) অর্ধ গলিত লাশ বুধবার  রাতে  উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার গা পাতা দিয়ে ঢাকা ছিল।
শ্রীপুর মডেল থানার ওসি আমির হোসেন জানান, দুর্বৃত্তরা অন্তত: তিনদিন আগে ওই মহিলাকে হত্যার পর লাশটি পাতা দিয়ে ঢেকে গজারী বনের ভেতর ফেলে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। লাশের গলায় কাপড় পেঁচানো ছিল।

এদিকে, গাজীপুর সদর উপজেলার দেশীপাড়া এলাকার মো ইয়ার উদ্দিনের প্রথম স্ত্রী আলেমুন নেছার (৬২) লাশ বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির পাশের জমি থেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে। নিহতের বাম চোখে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহত আলেমুন নেছা নি:সন্তান ছিলেন। রাতে সে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। এব্যপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ ইয়ার উদ্দিনের দ্বিতীয় স্ত্রীর দু’সন্তান রানা (২৬) ও সজীবকে (২০) আটক করেছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

একই উপজেলার টেক কাথোরা এলাকার আশরাফুল মন্ডলের বাড়ির ভাড়াটিয়া নাজমুল হোসেন সেলিম (৪৫) বুধবার গভীর রাতে প্রতিবেশী এক নারী পোশাক কর্মীর সঙ্গে গল্প করছিল। এ অপরাধে বাড়ির মালিক ও তার লোকজনের বেধড়ক পিটুনিতে ঘটনাস্থলেই সেলিম নিহত হয়। স্থানীয় এক গার্মেন্টসের কর্মকর্তা সেলিমের বাড়ি শরিয়তপুরের জাঝিরায়।

এছাড়াও ওই উপজেলার খাইলকৈর এলাকার রাসেলের স্ত্রী সাথীকে (২২) তিন দিন আগে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকার এক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিতনাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার দুপুরে সে মারা যায়। নিহতের পরিবারের দাবী তাকে খুন করা হয়েছে। বিকেলে পুলিশ গাজীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে সুরতহাল করেছে।

অপর দিকে, কালিয়াকৈর উপজেলার ডাইনকিনীতে একটি কাঁঠাল গাছ থেকে এক মহিলার ঝুলন্ত লাশ বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ উদ্ধার করেছে। তার নাম খালেদা আক্তার (২৮)। সে কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুরের কুড়ারপাড়া এলাকার মুকুল মিয়ার স্ত্রী। তারা কালিয়াকৈরের ডাইনকিনীতে আব্দুর রহমানের কলোনীতে ভাড়া থাকতো।

লাশগুলো বৃহস্পতিবার ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।