সোনাদিয়া থেকে কোটি কোটি টাকার শুকনা মাছ রপ্তানী হচ্ছে

বঙ্গোপসাগর ঘেষে অবস্থিত মহেশখালীর সোনাদিয়ার চরে হাজার হাজার জেলে ক্ষনস্থায়ী আবাস স্থান তৈরী করে ফিশিং কৃত মাছ শুকিয়ে শুটকি মহল তৈরী করে কোটি কোটি টাকার মাছ দেশে বিদেশে আমদানী রপ্তানী করে ব্যবসায়ীরা স্বাবলম্বী হচ্ছে তাদের মাঝে খুশির আমেজ। তৈরীকৃত মাছ লইঠ্যা, চিংড়ি, ফাসিয়া, রুপচাদা, কামিলা, লাওক্ষা, করতি, চুরি, রুপসা, সুরমা ও বিভিন্ন প্রজাতের শুকনা মাছ দৈনিক প্রায় কোটি টাকার মাছ ব্যবসায়ীরা ক্রয়-বিক্রয় করে। এই মূল্যবান মাছ গুলি চট্টগ্রামের আছতগঞ্জ, ঢাকা, সিলেট, উত্তরবঙ্গের-বগুড়া, রংপুর, পাবনা, টাঙ্গাইল সহ দেশের বড় বড় শহরে আমদানি রপ্তানি করা হয় এবং বিদেশ আমেরিকা, বৃটেন, থাইল্যান্ড, জার্মান, সৌদিয়া, দুবাই সহ উন্নত দেশে রপ্তানি করে কোটি কোটি টাকা দেশে আনছে। এ ছাড়া ও কক্সবাজারের নাজিরার টেক, ধলঘাটার সাপমারার ডেইল,  পটুয়াখালী, খুলনা, রাঙ্গাবালী, বাহারখিল্লা, ভিতরখিল্লা চরে ও এভাবে মাছ শুকানোর ধুম পড়েছে বলে জানাগেছে।

 

সোনাদিয়ার চরের ব্যবসায়ী আব্দু শুক্কুর জানান, চর থেকে কোটি কোটি টাকার শুকনা মাছ ক্রয় করে ঢাকা, সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, চট্রগ্রাম, খাগড়াছড়ি সহ বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করে প্রচুর লাভবান হয়। ব্যবসায়ী রশিদ আহমদ জানান, চর থেকে দৈনিক প্রায় লক্ষ টাকার মাছ কিনে বিভিন্ন জায়গার আমারা নির্ধারিত ব্যবসায়ীদের কে সাপ্লাই দিয়ে প্রচুর টাকা লাভবান হই। ব্যবসায়ী আব্দু জলিল জানান, আমি সুযোগ বুঝে সস্তা দাম দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ গুদামজাত করে রাখি তা বর্ষাকালে দামচড়া হলে আস্তে আস্তে বিক্রি করি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।