নাটোরে শিবিরের সেক্রেটারিসহ ১০ নেতাকর্মী কারাগারে

নাটোরে জামায়াত-পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনায় দুই মামলায় জেলা ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারিসহ আটক জামায়াত-শিবিরের ১০ নেতাকর্মীকে মঙ্গলবার দুপুরে নাটোর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এ মামলায় ২৫০ জনকে আসামি করা হয়।

সূত্র জানায়, নিজামী সাঈদীসহ আটক জামায়াত নেতাদের মুক্তির দাবিতে সোমবার শহরের হরিশপুর বাইপাস মোড় থেকে বের করা মিছিলকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় নাটোর থানার এস আই নূরে আলম বাদী হয়ে সোমবার রাতে জেলা জামায়াতের আমির অধ্যাপক মো. ইউনুস আলী ও জেলা ছাত্রশিবিরের শীর্ষ নেতাসহ ২৫০ জনের নামে পুলিশের কাজে বাধা ও মারপিটের অভিযোগে দুটি মামলা দায়ের করে। এই ঘটনায় এন এস কলেজের সাবেক জিএস কল্লোলসহ কয়েকজন গুলিবিদ্ধ ও পুলিশসহ অন্তত ২৬জন আহত হয়।

এই মামলায় নাটোর জেলা ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারি আবু তালেব, হরিশপুর ইউনিয়নের তিন নং ওর্য়াড জামায়াতের সভাপতি শাহ আলম, গুনারিগ্রাম মসজিদের ইমামের তিন ছেলে জামায়াত কর্মী মোহায়মেনুল, মুক্তাদির ও মুহিদ, জামায়াত-শিবিরের কর্মী উমর আলী বিশ্বাস, রফিকুল ইসলাম, বুলেট, সারোয়ার ও আলীকে আটক করেছে।

এদের মধ্যে সাতজনকে গত রাতে এবং অপর তিনজনকে সংঘর্ষের পর আটক করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে আটককৃতদের নাটোরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে ভারপ্রাপ্ত জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুন্নি বেগম তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম উদ্দিন জানান, পুলিশ অন্যান্য আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার করার জন্য অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।