ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে সাংবাদিকসহ আহত ৩, আটক ১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে সাংবাদিক আল আমীন শাহীনসহ তিনজন আহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার ভোররাতে ফজর নামাজের সময় পৌর এলাকার গোকর্ণ রোডের সরকার পাড়ায়। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে।

ছুরিকাঘাতে আহতরা হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি দৈনিক নয়া দিগন্ত ও নতুন বার্তার জেলা প্রতিনিধি আল আমিন শাহিন (৪২), দৈনিক ভোরের পাতার জেলা প্রতিনিধি নুরুল হুদা (৪০) এবং পৈরতলা এলাকার বাসিন্দা সাইদুল ইসলাম (৩৮)।

পুলিশ ও আহতরা জানান, বুধবার রাতে তারা তিনজন চট্টগ্রামগামী তূর্ণা নিশীথা ট্রেনে করে ঢাকা থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসেন। ট্রেন দেরি করায় ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে ট্রেনটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্টেশনে পৌঁছায়।

পরে তারা রিকশায় করে উত্তর পৈরতলায় সাংবাদিক আল-আমিন শাহীনের বাসায় যাওয়ার পথে সরকার পাড়া এলাকায় পৌঁছালে মুখোশধারী পাঁচজন ছিনতাইকারী তাদের রিকশা আটক করে। এ সময় ছিনতাইকারীরা তাদের মারধর করতে শুরু করেন এবং আল আমিন শাহীনের একটি ল্যাপটপ, নগদ টাকা, মোবাইল ফোন এবং অন্যদের সঙ্গে থাকা টাকা-পয়সা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়।

এ সময় সাংবাদিক আল আমিন শাহীন আত্মরক্ষা করতে গেলে ছিনতাইকারীরা তাদের ওপর উপর্যুপুরি ছুরি চালতে থাকে। ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে আল আমিনের বাম হাত ও কপাল, নুরুল হুদার ডান পা ও বাম হাতের দুটি রগ কাটা পড়ে এবং সাইদুল ইসলামের বাম পায়ে ছিনতাইকারীরা ছুরি দিয়ে আঘাত করে। পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যান।

খবর পেয়ে পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান পিপিএম (বার) ও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবদুর রব আহত সাংবাদিকদের দেখতে হাসপাতালে যান। এ সময় দুর্বৃত্তদের দ্রুত গ্রেফতার করার ব্যাপারে আশ্বস্ত করেন জেলা পুলিশ সুপার।

পরে আহত দুই সাংবাদিককে শহরের মধ্যপাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি সৈয়দ মিজানুর রেজা, সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন জামিসহ সাংবাদিকরা তাদের সহকর্মীদের দেখতে হাসপাতালে যান এবং তাদের চিকিৎসার বিষয়ে খোঁজখবর নেন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রব জানান, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাংবাদিকদের উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।