লক্ষ্মীপুরে সন্ত্রাসীদের গুলিতে যুবদলকর্মী খুন, আটক-২

জেলার সদর উপজেলায় মোহাম্মদ রিপন (১৯) নামের এক যুবককে গুলি করে খুন করেছে সন্ত্রাসীরা। নিহত রিপন সদর উপজেলার মান্দারী ইউনিয়নের বাইনতলা গ্রামের হেলাল উদ্দিনের ছেলে এবং যুবদলের কর্মী ছিলেন বলে জানা গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার ভোররাতে। সকাল ৯টায় তারা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ রাশেদুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে।
নিহতের বাবা হেলাল উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে মোবাইল ফোনে রিপনকে বাড়ি থেকে ডেকে নেয় কে বা কারা। পরে গভীর রাতে একই উপজেলার করইতলা এলাকার রাস্তার পাশে তাকে গুলি করে মৃত ভেবে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এ সময় এলাকাবাসী গুলির শব্দ পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে অবস্থার অবনতি হলে শুক্রবার ভোররাতে তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসাপতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। রিপন স্যানেটারি মিস্ত্রীর কাজ করতেন এবং যুবদলকর্মী ছিলেন বলে জানান স্থানীয়রা।
এদিকে নিহত রিপনের বোন আয়েশা বেগম জানান, পার্শ্ববর্তী বাঙ্গাখাঁ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও যুবলীগ নেতা মোহাম্মদ শাহজাহান এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত। তার ভাই মারা যাওয়ার আগে হাসপাতালে নেওয়ার পথে বলে গেছেন- শাহজাহান ও তার বাহিনীর লোকেরা তাকে গুলি করেছে।
মান্দারী ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন ও যুবদলের সভাপতি ইছমাইল হোসেন নিহত রিপনকে নিজেদের দলীয় কর্মী বলে দাবি করেছেন।
লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ইকবাল হোসেন জানান, সন্ত্রাসীদের গুলিতে রিপন নিহত হয়েছে। তবে কারা এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সেটা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।