কক্সবাজারে পুলিশের ৬ ওসির পর এবার ১০৭ সদস্যের বদলি

ইয়াবা বিরোধী বিশেষ অভিযান অব্যাহত রাখতে কক্সবাজারে প্রশাসনের পওে নতুন কৌশল প্রয়োগ করা হচ্ছে। আর এ কৌশলের অংশ হিসেবে কক্সবাজার জেলার ৬ জন ওসিকে একযোগে বদলির পর এবার আরো ১০৭ সদস্যকে একযোগে বদলি করা হয়েছে। এর মধ্যে উপ-পরিদর্শক (এসআই) রয়েছেন ১৬ জন, সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রয়েছেন ১৭ জন, কনষ্টেবল রয়েছেন ৭৪ জন।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফায়েল আহমদ এ বদলীর সত্যতা স্বীকার করেছেন। তবে ঠিক কি কারণে এ বদলি তা জানাননি।
পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, দীর্ঘদিন পরে হলেও ইয়াবা পাচার রোধে কক্সবাজার জেলার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বর্তমানে কঠোর অবস্থানে রয়েছেন। কোনভাবে যাতে ইয়াবা পাচার করতে না পারে তার জন্য বিশেষ অভিযানও শুরু হয় গত এক মাস ধরে। এতে ইয়াবা বিরোধী বিশেষ অভিযানে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে বন্দুক যুদ্ধে ৬ জন শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধ হয়ে ৮ জন আহত হয়েছে। এসব ঘটনার পর ইয়াবার চিহ্নিত গডফাদাররা আত্মগোপনে চলে গেলেও বন্ধ হয়নি ইয়াবা পাচার কর্মকান্ড। বরং নতুন কৌশলে ইয়াবা পাচার অব্যাহত রাখা হয়েছে।। আর এ ইয়াবা রোধে নতুন কৌশল হিসেবে আরো ১০৭ পুলিশ সদস্যের এক যোগে বদলি করা হয়েছে। সূত্র জানিয়েছে, আরো বেশ কয়েকজনের বদলির প্রক্রিয়া চলছে।
এর আগে কক্সবাজার জেলার ৬ জন ওসিকে একযোগে বদলি করা হয়েছে। বদলি হওয়া ওসিরা হচ্ছেন টেকনাফ থানার রণজিত কুমার বড়–য়া, উখিয়া থানার জাহিদুল কবির, রামু থানার অপেলা রাজু নাহা, কক্সবাজার সদর মডেল থানার মোঃ জসিম উদ্দিন, চকরিয়া থানার মোঃ ফরহাদ ও কুতুবদিয়া থানার জহিরুল ইসলাম খাঁন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।