মহেশখালী উপজেলা ভুমি অফিসে এসিল্যান্ড শুন্য : জনগনের চরম দুর্দশা

কক্সবাজারের মহেশখালীর ভূমি অফিসে দীর্ঘ দিন ধরে সহকারি কমিশনার (ভূমি) না থাকায় প্রায় ৩ লক্ষ জনসাধারণ দীর্ঘ দিন ধরে জায়গা জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে চরম দুর্ভোগের শিকার হয়ে আসছে। র্দীর্ঘদিন ধরে এসিল্যান্ডের পদটি শূণ্য থাকায় সঠিক সময়ে কাজ বুঝে পেতে নানা হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে ফরিয়াদীদের। সূত্রে জানা যায়, সরকার মহেশখালীতে প্রস্তাবিত গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মানের পরিকল্পনা নেওয়ায় সাম্প্রতিক সময়ে এ উপজেলার কুতুবজোম, বড় মহেশখালী ইউনিয়ন ও পৌরসভা এলাকাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে গত কয়েক বছরে জমির মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে জমি বেচা বিক্রি বেড়ে গেছে। এসব জমির নতুন খতিয়ান সৃজন করতে নানা ভোগান্তি পোহাচ্ছে  জনগন। স্থানীয় সাধারণ জনগনের দাবী অবিলম্বে এসিল্যান্ড নিয়োগ দিয়ে ভূমি অফিসের কাজে গতি আনা হোক।

 

জানা গেছে , বেশ কয়েক বার উপজেলার বিভিন্ন কমিটির সভায় মহেশখালীর গুরুত্বপূর্ণ এই ভূমি অফিসে একজন এসিল্যান্ড নিয়োগের দাবী জানালেও অদৃশ্য কারণে দাবীটি এ পর্যন্ত পূরণ হয়নি। মহেশখালী ভূমি অফিসে অচিরেই সহকারী কমিশনারের (ভূমি) শূন্য পদ পূরণে মহেশখালীর রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো জোর দাবি জানিয়েছেন। অন্যথায় তারা আন্দোলনে যাবে বলে ও হুশিঁয়ারি উচ্চারণ করেন। ভুক্তভোগী লোকজন মনে করেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ  কাজে ব্যস্ত থাকায় এসিল্যান্ড অফিসে ঠিক মতো সময় দিতে পারে না। তাই দ্রুত এসিল্যান্ড নিয়োগ দিলে জনসাধারণের দুর্ভোগ লাঘবের পাশাপাশি সরকারের রাজস্ব আয়ও বাড়বে এতে কোন  সন্দেহ নেই।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।