সিলেটে ছাত্রদল নেতা খুন, ছাত্রলীগ সভাপতি গ্রেপ্তার

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের ছাত্রদল নেতা তৌহিদুল ইসলাম হত্যা মামলায় কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি সৌমেন দেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার রহমত উল্লাহ জানান, শনিবার রাত ১০টার দিকে নগরীর রেলওয়ে স্টেশন থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। অন্য আসামিদেরও গ্রেপ্তার অভিযান চলছে।
এর আগে কলেজ কর্তৃপক্ষ সৌমেনসহ ছাত্রলীগের ১০ নেতাকর্মীকে কলেজ থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করে। এ ১০ জন হলেন তৌহিদুল হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। অপর নয় আসামি হলেন কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হাই, সাংগঠনিক সম্পাদক মোশফেকুজ্জামান আকন্দ রাফি, হাফিজুর রহমান, ফারহান আনজুম পাঠান, অন্তর দ্বীপ, শরিফুল ইসলাম, জহুর রায়হান রিপন, আবু সাহাল ফাহিম ও জুবায়ের ইবনে খায়েজ।

গত বুধবার রাতে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের আবু সিনা ছাত্রাবাসের একটি কক্ষে কলেজ ছাত্রদলের আপ্যায়ন সম্পাদক তৌহিদুল ইসলামকে পিঠিয়ে হত্যা করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় নিহতের চাচা আনোয়ার হোসেন মাতব্বর বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার ছাত্রলীগের এ ১০ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ আরো ৮-১০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

এদিকে তৌহিদুল ইসলাম হত্যার প্রতিবাদে ডাকা রবিবারের হরতাল প্রত্যাহার করেছে বিএনপি। শনিবার বিকালে সিলেট নগরীতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন মহানগর বিএনপি সভাপতি এম এ হক।

তিনি জানান, পুলিশ প্রশাসন আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে তৌহিদুল হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস ও ওসমানী মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ মামলার এজাহারভুক্ত ১০ আসামিকে বহিষ্কার করায় হরতাল এক প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।