মাদক, জঙ্গি ও জনহয়রানী এই ৩টি বিষয়কে সামনে রেখে কাজ শুরু করেছেন কুমিল্লার নতুন এসপি

মাদক, জঙ্গি ও জনহয়রানী এই তিনটি বিষয়কে সামনে রেখে আনুষ্ঠানিক ভাবে কাজে নেমে পড়েছেন কুমিল্লার নবাগত পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম। বুধবার আনুষ্ঠানিক ভাবে পুলিশ সুপার অফিসের কনফারেন্স রুমে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি তার কাজের মূল এজেন্ডা হিসেবে এই তিনটি বিষয়ের কথা উল্লেখ করেন।

কুমিল্লার নবগত এই পুলিশ সুপার এর আগে ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে নবাগত পুলিশ সুপার জানান, তিনি মাদক, জঙ্গি এবং জনহয়রানীর বিষয়ে জিরোটলারেন্স দেখাবেন। যে কোন পর্যায়ের দর্শনার্থীই তার কাছে সহজে আসতে পারবেন বলে তিনি জানান।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন, সাখাওয়াত হোসেন, ডিআইওয়ান মাহবুব মোর্শেদ, কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুস সালাম মিয়াসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

কুমিল্লার পুলিশ সুপার কার্যালয় সূত্র জানায়, সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম(বার),পিপিএম। ২০তম বি.সি.এসের মাধ্যমে ২০০১ সালে বাংলাদেশ পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। পরবর্তীতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতয়ালী থানার সহকারী কমিশনার, রমনা বিভাগের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার, নারায়নগঞ্জ জেলার এসপি, ঢাকার বিশেষ এস.বিসহ পুলিশ বিভাগের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। তিনি জাতিসংঘের শান্তি রক্ষা মিশনেও বহু দিন কাজ করেছেন। সাহসিকতার জন্য তিনি বাংলাদেশ পুলিশের সর্বচ্চো পুরস্কার বিপিএম(বার), এবং পিপিএম পদক অর্জন করেন।

সৈয়দ নুরুল ইসলাম বাংলাদেশ পুলিশের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ট ব্যক্তি হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশ এসোসিয়েশনের জেনারেল সেক্রেটারীরও দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বর্তমানে ২০তম বিসিএস ফোরাম এর সাধারণ সম্পাদকও। তিনি ২আগস্ট ২০১৬ থেকে ১৪ আগস্ট ২০১৮ পর্যন্ত ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার ছিলেন।

এক ছেলে ও এক কণ্যার সন্তানের জনক সৈয়দ নুরুল ইসলাম ১৯৭১ সালের ১ মার্চ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার জালমাছমারি গ্রামে জন্ম গ্রহন করেন। তাঁর পিতা সৈয়দ কসিমুদ্দীন মিয়া এবং মাতা সৈয়দা গুলনাহার বেগম। পিতা-মাতার ৫ সন্তানের মধ্যে তিনি চতুর্থ।