করোনা রোগীদের জন্য সেইভ দ্যা হিউম্যানিটির অক্সিজেন ব্যাংক

প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বহুমুখী সামাজিক কার্যক্রমের মধ্যদিয়ে মানুষের আস্থা অর্জন করেছে সেভ দ্যা হিউম্যানিটি। বিনা অক্সিজেনে ঝড়ে পড়বে না কোন প্রাণ’ এবার এই স্লোগানকে সামনে রেখে লাকসামে সেইভ দ্যা হিউম্যানিটি অক্সিজেন ব্যাংকের যাত্রা করে ।


সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সুপ্রিম কোর্টের এডভোকেট মুহাম্মদ বদিউল আলম সুজন জানান, সারা দেশে কেবল অক্সিজেন সংকটের কারণে অনেক করোনা আক্রান্ত রোগী মারা যাচ্ছে। সরকারি অব্যবস্থাপনার কারণে অনেক সময় অক্সিজেন থাকার পরও রোগীরা সেটা পাচ্ছে না। সময় মতো অক্সিজেন সরবরাহ না করার জন্যই করোনা ওয়ার্ডের রোগীর মৃত্যুর হার বাড়ছে। করোনা রোগীদের শ্বাসকষ্ট শুরু হলে অতি প্রয়োজনীয় হয়ে পড়ে অক্সিজেন। এই অক্সিজেন সংকটে হতদরিদ্র মানুষের পাশে থাকতে আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রয়াস। এখন থেকে করোনা আক্রান্ত হয়ে যারা শ্বাসকষ্টে ভুগবেন সেভ দ্যা হিউম্যানিটির হেল্প লাইনে ফোন দিলে স্বেচ্ছাসেবক গণ প্রথমে পালস অক্সিমিটার দিয়ে পরীক্ষা ও পরে অক্সিজেন সরবরাহ করা হবে। পর্যায়ক্রমে অক্সিজেন সিলিন্ডার ও অক্সিমিটারের সংখ্যা বাড়ানো হবে। বিগত দিনের মত তাদের পাশে থাকবে স্বেচ্ছাসেবী এ সংগঠনটি।


এড. বদিউল আলম সুজন আরো বলেন – সরকার করোনা রোগীদের পরীক্ষায় ফি নির্ধারণ করার যে চেষ্টা চালাচ্ছেন এই মুহূর্তে তা জনগণের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়াবে। সেইভ দ্যা হিউম্যানিটি একদিকে যেমন জনগণের স্বাস্থ্য অধিকার আদায়ে লড়াই করছে, তেমনি দায়িত্বশীল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হিসেবে জনগণের পাশে দাঁড়াচ্ছে। মানুষের জীবন বাঁচাতে সেইভ দ্যা হিউম্যানিটি এর এই অক্সিজেন ব্যাংক কে সমৃদ্ধ করতে সবাইকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান তিনি।


সংগঠনের সদস্য ইকবাল হাফিজ বলেন – করোনা প্রাদূভার্বের শুরুতে সর্ব সাধারনের মাঝে মাস্ক, হ্যান্ডগ্লাভস, হ্যান্ডসেনিটাইজার ও প্রচারপত্র বিতরণ করা হয়েছে। শ্রমজীবী ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য ও চিকিৎসা সহায়তা প্রদান, নিন্ম মধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে অর্থিক সহায়তা, করোনা রোগীদের জন্য ফ্রী এ্যাম্বুলেন্স সেবা, স্বেচ্ছায় রক্তদানসহ বিভিন্ন সামাজিক সেবা কার্যক্রম অব্যাহত আছে। করোনা রোগীর জন্য খাদ্য সহায়তা ও কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা। করোনা জয়ীদের ফুলেল শুভেচ্ছা। করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত ব্যক্তির দাফন, কাফন ও জানাযায় ব্যবস্থা করা হয়েছে।