নিরব-নিথর মন্ডপগুলো
লাকসামে পুজার মন্ডপ পরিদর্শণে পৌর ও উপজেলা নেতৃবৃন্দ

সারা দেশের ন্যায় কুমিল্লার লাকসামে করোনার প্রভাব পড়েছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গোৎসবে। রবিবার (২৫ অক্টোবর) নবমীর দিনেও অনেকটা বাজ-বাজনা বিহীন দূর্গাপুজার মন্ডপগুলো ছিল অনেকটাই নিরব-নিথর।



তবে সুষ্ঠু ভাবে পূজা উদযাপন উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ ব্যাপক ভুমিকা পালন করে যাচ্ছে।


২৫ অক্টোবর সন্ধ্যার পর পৌর শহরের বিভিন্ন মন্দির পরিদর্শণ যান পৌর মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মহাব্বত আলী।


লাকসাম পৌরসভার ১৮টি পূজা পরিদর্শন কালে পৌর মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মহাব্বত আলী পূজা উদযাপন পরিষদের বিভিন্ন মন্ডপের নেতৃবৃন্দের হাতে সরকারি বরাদ্দকৃত অর্থ, এলজিআরডি মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলামের ব্যক্তিগত তহবিল ও পৌর মেয়র তহবিল থেকে আর্থিক অনুদানের চেক তুলে দেন।


বরাদ্দকৃত অর্থের মধ্যে ছিল, সরকারি বরাদ্দকৃত ১৭ হাজার ৫শ’, এলজিআরডি মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলামের ব্যক্তিগত তহবিলের ৫ হাজার ও পৌরমেয়র তহবিল থেকে ৫ হাজার টাকা।


অনুদান বিতরন কালে উপস্থিত ছিলেন, লাকসাম উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট মোঃ ইউনুছ ভূঁইয়া, লাকসাম পৌরসভার মেয়র অধ্যাপক মোঃ আবুল খায়ের, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান মোঃ মহব্বত আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মোঃ রফিকুল ইসলাম হিরা, লাকসাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নিজাম উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পড়শী সাহা, এসময়র আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, পূজামন্ডপের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


এ ছাড়া আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের এবং পূজা উদযাপন পরিষদের পৌরসভা ও উপজেলার বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


উল্লেখ্য এর আগে উপজেলার প্রায় ১৫টি পূজান্ডপে অনুদানের অর্থ বিতরণ করা হয়।