বিনিয়োগ বাড়বে না, রাজনীতিতে সমঝোতা না হলে

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করার জন্য বিনিয়োগ প্রয়োজন। আর বিনিয়োগকারীর আস্থা ফেরাতে প্রয়োজন সমঝোতামূলক রাজনীতি। রবিবার রাজধানীর ব্রাক সেন্টারে বাংলাদেশের অর্থনীতির গতিপ্রকৃতির ওপর গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডির) এক পর্যালোচনা প্রতিবেদনে এ কথা তুলে ধরা হয়।
প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন সিপিডির নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক মুস্তাফিজুর রহমান। এ সময় অন্যের মধ্যে সিপিডির গবেষণা পরিচালক ফাহমিদা খাতুন ও অতিরিক্ত পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম উপস্থিত ছিলেন। প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি দীর্ঘদিন ধরে ৬ শতাংশে আটকে আছে। এই অবস্থা থেকে উত্তরণে বিনিয়োগ দরকার। কিন্তু ঠিক সেভাবে বিনিয়োগ হচ্ছে না।

এতে বলা হয়, বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগে আস্থা পাচ্ছেন না বিনিয়োগকারীরা। বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফেরানোর মূল শর্ত হচ্ছে সমঝোতামূলক রাজনীতি। মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, চলতি অর্থবছরের শুরু থেকে রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে বিনিয়োগ একেবারে মুখ থুবরে পড়েছে। তৃতীয় প্রান্তিকে এসে অস্থিরতা কমলে কাটেনি অনিশ্চয়তা। আর এ কারণে দেশে ব্যক্তিখাতে বিনিয়োগ বাড়ছে না।

তিনি বলেন, বিনিয়োগকারীদের স্বস্তি তখনই আসবে যখন তারা দেখবেন রাজনীতিবিদরা সমঝোতামূলক রাজনীতির মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নেয়া চেষ্টা করছেন। বিনিয়োগের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র রাজনৈতিক পরিস্থিতি ছাড়া আর কোনো প্রতিবন্ধকতা কি নেই- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সিপিডি নির্বাহী বলেন, রাজনৈতিক পরিস্থিতিই সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধকতা। এছাড়া অবকাঠামোগত কিছু প্রতিবন্ধকতাও রয়ে গেছে।
সিপিডির প্রতিবেদনে অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে অংশগ্রহণমূলক সমঝোতার রাজনীতি, সংস্কার প্রক্রিয়া ত্বরাণ্বিত করতে টাস্কফোর্স গঠন এবং স্থানীয় সরকারকে ক্ষমতায়ন করারসহ পাঁচটি সুপারিশ তুলে ধরা হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।