গ্যাসের দাম বাড়াতে সরকারকে চাপ দিচ্ছে কনোকো ফিলিপস

মার্কিন তেল কোম্পানি কনোকো ফিলিপসের নতুন শর্তের কারণে গভীর সমুদ্রে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে। কোম্পানিটি জানিয়েছে, উৎপাদন বন্টন চুক্তি-পিএসসি সংশোধন করে গ্যাসের দাম না বাড়ালে তারা অনুসন্ধান কাজ করবে না। অন্যদিকে পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান বলেছেন, সাগরে কনোকো ঠিকমত সিসমিক জরিপ করেনি। খবর ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের।

 

কনোকো ফিপিস সম্প্রতি সরকারকে বলেছে, সাইসমিক জরিপ করে গভীর সাগরের ১১ নম্বর ব্লকে একটি গ্যাসের স্তর পাওয়া গেছে। সে স্তরে পাচঁ ট্রিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস থাকার সম্ভাবনা ২০ থেকে ৫০ শতাংশ। কিন্তু ওই স্তরে পরবর্তী পর্যায়ের অনুসন্ধানের খরচ অনেক বেশী। তাই চুক্তির চেয়ে বেশি দামে গ্যাস কেনার প্রতিশ্রুতি দিতে হবে পেট্রোবাংলাকে। কিন্তু পেট্রোবাংলা বলছে ভিন্ন কথা।

 

জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী বলছেন, “কনোকোর দাবি মেনে নেয়া যাবে কিনা তা এখনো পরিষ্কার নয়। কারণ এ নিয়ে একটি  মাত্র বৈঠক হয়েছে।”
বিশেজ্ঞরা বলছেন, সরকার বিদেশি তেল কোম্পানিকে ঠিকমত নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেনা। তাই তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ব্যাহত হচ্ছে।
২০০৮ সালে থার্ড রাউন্ড বিডিং এ মার্কিন এই কোম্পানিকে ১০ এবং ১১ নম্বর ব্লক দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে চুক্তি হয়েছে ২০১১ সালের জন মাসে। সরকারি কর্মকর্তারা জানান, গত তিন বছরে সাগরে কি কি কাজ করেছে তার বিবরণ এখনো দেয়নি কনোকো ফিলিপস।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।