বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে অর্থ চুরি এফবিআইয়ের সঙ্গে সিআইডির বৈঠক আজ

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে অর্থ চুরির ঘটনায় মার্কিন তদন্ত সংস্থা এফবি আইয়ের সঙ্গে বৈঠকে বসবে বাংলাদেশ পুলিশের অপরাধ তদন্ত সংস্থা সিআইডি।

শুক্রবার বিকেলে ঢাকায় সিআইডির কার্যালয়ে এফবি আই প্রতিনিধিদের সঙ্গে এ বৈঠক হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (সিআইডি) সাইফুল আলম।

সূত্রে জানা যায়, রিজার্ভ কেলেঙ্কারির ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার তদন্তে সাইফুলের নেতৃত্বে সাত সদস্যের একটি কমিটির কাজ করছে। বৃহস্পতিবার তদন্ত কর্মকর্তারা ব্যাংলাদেশ ব্যাংকে যান। এ সময় সাইফুল আলম সাংবাদিকদের এফবি আইয়ের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়টি জানান।

এ সময় সাইফুল আলম জানান, তাঁরা বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের টাকা চুরির ঘটনা নিয়ে এফবি আইয়ের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

এরই মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্ভার নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে তদন্তকারীরা। এর নিরাপত্তার বিষয়টি যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে। এ ব্যাপারে ব্যাংকের কিছু সাবেক ও বর্তমান কর্মকর্তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানা গেছে।

ফেব্রুয়ারির শুরুতে ‘সুইফট মেসেজ হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের ১০০ মিলিয়ন ডলার বা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৮০০ কোটি টাকা অর্থ লোপাটের ঘটে। এর মধ্যে থাইল্যান্ডে ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার এবং বাকি অর্থ শ্রীলঙ্কায় পাচার হয়। অবশ্য বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, শ্রীলঙ্কায় পাচারকৃত অর্থ তারা ফেরত আনতে সক্ষম হয়েছেন। অর্থ লোপাটের ওই ঘটনাটি বাংলাদেশ ব্যাংক প্রথমদিকে গোপন রাখে। তবে ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে ফিলিপাইনের স্থানীয় গণমাধ্যম ইনকোয়েরারে এ ঘটনাটি প্রথম প্রকাশ পায়। পরবর্তী তা বাংলাদেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে এতে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান। এরই জেরে গত ১৫ মার্চ পদত্যাগ করেন তিনি। আর এ পদে নিয়োগ পেয়েছেন সাবেক অর্থসচিব ও সোনালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ফজলে কবীর।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাজধানীর মতিঝিল থানায় একটি মামলা করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।