সালমান রূঢ় ও স্বার্থপর

‘সালমানের সঙ্গে “আন্দাজ আপনা আপনা” ছবিতে আমার কাজের অভিজ্ঞতা মোটেও ভালো ছিল না। সে সময় তাঁকে আমি খুবই অপছন্দ করতাম। তাঁকে অত্যন্ত রূঢ় ও স্বার্থপর মনে হয়েছিল আমার।’ সম্প্রতি ‘দাবাং’ তারকা সালমান খান সম্পর্কে এমন কড়া মন্তব্যই করেছেন ‘মিস্টার পারফেকশনিস্ট’ তারকা আমির খান।
সম্প্রতি ‘কফি উইথ করণ ৪’ অনুষ্ঠানে স্ত্রী কিরণ রাওয়ের সঙ্গে অতিথি হিসেবে হাজির হয়েছিলেন আমির খান। তারকা আড্ডার জনপ্রিয় অনুষ্ঠানটির তৃতীয় পর্বে বলিউডের প্রভাবশালী তারকা অভিনেতা সালমান খানকে নিয়ে খোলামেলা নানা কথা বলেছেন আমির খান।
অনুষ্ঠানটিতে সালমানকে কেবল রূঢ় ও স্বার্থপরই বলেননি আমির, দীর্ঘ সময় ধরে তাঁকে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেছিলেন বলেও জানিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে আমিরের ভাষ্য, ‘সালমানের সঙ্গে দেখা হলে আমি তাঁর সঙ্গে সৌজন্যমূলক আচরণই করতাম। কিন্তু মানুষটিকে মন থেকে একদমই পছন্দ করতে পারতাম না। আমি তাঁকে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করতাম। দীর্ঘ সময় ধরে এমনটা চলেছে।’ এক খবরে এমনটিই জানিয়েছে জিনিউজ।
আমির আরও বলেন, ‘তবে একটা সময়ে সালমানকে আমি পছন্দ করতে শুরু করি। আর এটা ঘটেছিল আমার প্রথম স্ত্রী রিনার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর সালমান যখন আমার পাশে এসে দাঁড়াল। রিনার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর জীবনের কঠিন এক সময় পার করছিলাম আমি। ঠিক সেই মুহূর্তে আমার প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল সালমান। সে আমার নিঃসঙ্গ জীবনের দুঃখ ঘোচাতে এগিয়ে এসেছিল। প্রায় সময়ই আমরা একসঙ্গে গল্পগুজব করে কাটাতাম। মাঝেমধ্যে মদ্যপানও করতাম। আমি ঠিক জানি না, কীভাবে যেন সালমানের সঙ্গে আমার অন্য একধরনের সংযোগ স্থাপিত হয়। তাঁর প্রতি প্রচণ্ড টান অনুভব করতে শুরু করি। দিনকে দিন আমাদের সখ্য বেড়েই চলল। প্রচুর সময় আমরা একসঙ্গে কাটাতে লাগলাম।’

প্রসঙ্গত, ১ ডিসেম্বর থেকে ভারতের স্টার ওয়ার্ল্ড টিভি চ্যানেলে ‘কফি উইথ করণ ৪’ অনুষ্ঠানটির প্রচার শুরু হয়েছে। জনপ্রিয় তারকা আড্ডার অনুষ্ঠানটিতে তারকাদের চমকপ্রদ নানা হাঁড়ির খবর বের করার ক্ষেত্রে মুনশিয়ানার পরিচয় দিয়ে চলেছেন এর সঞ্চালক করণ জোহর। প্রথম পর্বে সালমান খান ও তাঁর বাবা সেলিম খান এবং দ্বিতীয় পর্বে রণবীর কাপুর ও তাঁর চাচাতো বোন কারিনা কাপুর খানকে হাজির করে এরই মধ্যে হইচই ফেলে দিয়েছেন করণ।
অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে রণবীর-ক্যাটরিনাকে নিয়ে কারিনার বেফাঁস নানা মন্তব্য নিয়ে রীতিমতো তোলপাড় উঠেছে বলিউডে। সেখানে ক্যাটরিনার বিয়ে নিয়ে হেঁয়ালির পাশাপাশি তাঁকে ভাবি বলেও সম্বোধন করেন কারিনা। শুধু তা-ই নয়, তিনি ক্যাটকে চুমুও খেতে চান।
কারিনার সব মন্তব্য সহজভাবে নিলেও, চুমু খাওয়ার মন্তব্যটিকে ঠিক হজম করতে পারেননি ক্যাটরিনা। সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে ভারতের প্রথম সারির একটি ট্যাবলয়েডের সঙ্গে আলাপচারিতার সময় ক্যাটরিনা বলেন, ‘আমার বিয়েসহ আরও নানা বিষয় নিয়ে কারিনা অনেক কথাই বলেছেন। আমি জানি, সেগুলো তিনি স্রেফ মজা করার জন্যই বলেছেন। কিন্তু কারিনা যখন বললেন, তিনি আমাকে চুমু খেতে চান তখন বিস্ময়ে হতবাক হয়ে যাই আমি।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।