চাপ সৃষ্টি করে কোনো রায় বের করার প্রবণতা সমাজে ভালো ফল দেয় না: সুলতানা কামাল

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামাল শাহবাগে পছন্দের রায় দিতে বিচার বিভাগকে চাপ দেয়ার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছেন । সুলতানা কামাল বলেছেন, ‘ বিচার বিভাগের ওপর চাপ সৃষ্টি করে কোনো রায় বের করে নিয়ে আসার প্রবণতা সমাজে ভালো ফল দেয় না।’ জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের ফাঁসি দিতে বিচার বিভাগের ওপর চাপ প্রয়োগে সরকার সমর্থকদের টানা ১০ দিনের আন্দোলনের মাথায় বাংলাদেশের কোন মানবাধিকার কর্মী এই প্রথম উদ্বেগ জানালেন।
গত ৫ ফেব্রুয়ারি জামায়াতের সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লাকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ মানবতা বিরোধী অপরাধের অভিযোগে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে ওই দিন সন্ধ্যা থেকে শাহবাগে সরকার সমর্থকরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আইন ও সালিশ কেন্দ্র আয়োজিত ‘নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ ও প্রতিকারে ডাক্তার, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও সুশীল সমাজের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তার উদ্বেগের কথা জানান মানবাধিকার কর্মী সুলতানা কামাল।  সুলতানা কামাল বলেন, ‘যে কোনো বিচারে অসন্তুষ্ট হতে পারি, তার মানে চাপ প্রয়োগ করা যাবে না। বিচারকদের বিচার করতে হবে কোনো রাগ-অনুরাগ ও নিজস্ব পছন্দের ঊর্ধ্বে থেকে।’
তিনি আরও বলেন, ‘সবার মধ্যে একটা নীতি থাকা উচিৎ। কেউ যেন ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত না হয়। এজন্য সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।’ শাহবাগে আন্দোলনরতদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আজকে যাদের বিচার করা হচ্ছে তারা ’৭১ সালে নারী নির্যাতন ও মানবতাবিরোধী অপরাধের মতো জঘন্যতম অপরাধ করেছে।’  ‘তাদের বিচারের জন্য তরুণরা নিজস্ব উদ্যোগে একটি প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে। এই জনমত থাকার কারণে শাহবাগ থেকে রায়ের উর্ধ্বে ওঠে ফাঁসি দাবি করছে’ যোগ করেন সুলতানা কামাল।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।