স্বামী পাওনাদেরের টাকা না দিতে পারায় স্ত্রী পালাক্রমে ধর্ষণ

পারায় জেলার সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুরে অগ্রিম টাকা নিয়ে অসুস্থতার কারণে কাজে যোগ দিতে না  পারায় এক দিনমজুরের স্ত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে পাওনাদারের লোকজন।  জানা গেছে, আইসঢাল তেলীপাড়া এলাকার রবিউল ইসলাম অভাবের তাড়নায় ভাটায় কাজ করার জন্য সরদারের কাছ থেকে অগ্রিম তিন হাজার টাকা নেয়। টাকা নেয়ার পর শারীরিক সমস্যার কারণে সময়মতো তিনি কাজ করতে পারেননি। পরে ভাটা সরদারের লোকজন রবিউলের স্ত্রীকে বাড়ি থেকে কৌশলে ডেকে কামারপুকুর বাজারে নিয়ে আসে। একপর্যায় তার স্বামী আসবে বলে অপেক্ষা করতে থাকে। দীর্ঘ সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও ঘটনাস্থানে স্বামী না আসায় ওই মহিলা কৌশলে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

পরে তাকে জোরপূর্বক পাশের আম বাগানে তুলে নিয়ে গিয়ে আইসঢাল ফকিরপাড়ার জাহাঙ্গীর, মোফাজ্জল, উকিল ও অজ্ঞাত আরো দুজনসহ পাঁচজন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

ওই রাতে ধর্ষিতা কোথাও না গিয়ে বাগানে রাত কাটায়। ঘটনার পরের দিন গত শুক্রবার সকালে ওই মহিলা ইউনিয়ন পরিষদের দুই ইউপি সদস্যকে বিষয়টি জানায়। পরে ইউপি সদস্যরা এ ব্যাপারে বিচার-সালিশ করতে পারবে না বলে জানিয়ে দেয়।

সুবিচার পেতে ধর্ষিতা স্বামীসহ সৈয়দপুর থানায় গিয়ে মামলা করার চেষ্টা করলে ধর্ষণকারীর লোকজনের হুমকিতে তারা থানা থেকে ফিরে আসে।

এ ব্যাপারে ধর্ষিতার স্বামী রবিউল জানায়, ‘আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হচ্ছে ধর্ষকদের পক্ষ থেকে। ধর্ষণকারীর লোকজন জোরপূর্বক আমার কাছ থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়।’

বর্তমানে ধর্ষিতা সুবিচারের আশায় অনেকের কাছে ধর্না দিচ্ছে। অন্যদিকে, ধর্ষণকারীদের হুমকিতে বাড়ি থেকে কোথাও যেতে পারছে না তিনি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।