মিশরে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের কাছে তুমুল সংঘর্ষ, নিহত ৪ - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

মিশরে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের কাছে তুমুল সংঘর্ষ, নিহত ৪



(খবর তরঙ্গ ডটকম)

নিউজ ডেস্ক,০৬ ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- মিশরের রাজধানী কায়রোয় প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের বাইরে প্রেসিডেন্ট মুরসির সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষে অন্তত চারজন নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে প্রায় ৩৫০ জন।প্রতিদ্বন্দ্বী দুপক্ষের মধ্যে বুধবার সারা রাত ধরে হামলা ও পাল্টা হামলা চলে। বৃহস্পতিবার সকালেও সংঘর্ষ হয়। তারা পরস্পরের প্রতি পাথর ও পেট্রল বোমা নিক্ষেপ করে।
প্রেসিডেন্ট মুরসির বিরোধীরা ‘স্বৈরাচার নিপাত যাক’ বলে শ্লোগান দেন। অন্যদিকে তার সমর্থকদের শ্লোগান ছিল এরকম- ‘মুরসিকে সমর্থন মানে ইসলামকে সমর্থন’।

সংঘর্ষরত দুপক্ষকে শান্ত করার জন্য দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েন করেও উত্তেজনা থামানো যায়নি।

সরকার বিরোধীরা প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ মুরসির পক্ষ থেকে গত সপ্তাহে জারি করা একটি সাংবিধানিক ডিক্রি বাতিলের দাবি জানাচ্ছেন। তাদের দাবি, এ ডিক্রির মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট মুরসি সব ক্ষমতা কুক্ষিগত করার চেষ্টা করছেন এবং তিনি নব্য স্বৈরশাসকে পরিণত হতে যাচ্ছেন।

অন্যদিকে মুরসির সমর্থকরা বলছেন, পতিত স্বৈরশাসক হোসনি মুবারকের শাসনামলে গঠিত সাংবিধানিক আদালত যাতে জননির্বাচিত প্রেসিডেন্ট বা পার্লামেন্ট বিলুপ্ত করে দিতে না পারে সেজন্য এ ডিক্রি জারির প্রয়োজন ছিল।

কয়েক মাস আগে ওই আদালত নবনির্বাচিত পার্লামেন্ট বিলুপ্ত করে দেয়। ওই পার্লামেন্টে ইসলামপন্থী ব্রাদার হুডের ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছিল।

মঙ্গলবার রাত থেকে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের অদূরে অল্প কিছু মানুষ তাবু খাটিয়ে অবস্থান ধর্মঘট করছিল। বুধবার রাতে মুরসির সমর্থকরা সেখানে হানা দিয়ে তাদের তাবু উঠিয়ে দেয়।

মিশরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বুধবার রাতে সহিংসতার দায়ে ৩২ ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

বুধবার রাতে কায়রোর সংঘর্ষ মিশরের অন্যান্য শহরেও ছড়িয়ে পড়ে। ইসমাইলিয়া ও সুয়েজ শহরে ক্ষমতাসীন ইখওয়ানুল মুসলিমিনের দপ্তরে আগুন ধরিয়ে দেয় বিরোধীরা।

সরকার সমর্থক ও বিরোধীরা সংঘর্ষ শুরুর জন্য পরস্পরকে দায়ী করেছেন।


পূর্বের সংবাদ