সিরিয়ায় হামলায় কমপক্ষে ৯০ জনের মৃত্যু

বিশ্ব ডেস্ক, ২৪ ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- সিরিয়ায় আসাদ সরকারের বিমান বাহিনী হামা প্রদেশের একটি বেকারিতে হামলা চালালে কমপক্ষে ৯০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই হামলায় আরো বিপুলসংখ্যক মানুষ আহত হলেও নিরপেক্ষ সূত্রে এ খবরের সত্যতা যাচাই করা যায়নি। দেশটির সরকারবিরোধী বিদ্রোহীরা হতাহতের এই দাবি করেছে। তারা বলছে, হালফায়া নামক স্থানে ওই বিমান হামলার সময় মানুষজন একটি বেকারির সামনে রুটি সংগ্রহের জন্য সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়েছিল।

সিরিয়ার মধ্যাঞ্চলের হামা প্রদেশের হালফায়া এলাকাটি সম্প্রতি প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বিদ্রোহীরা নিজেদের দখলে নেয়। বিদ্রোহী সিরিয়ান আর্মিরা হামা প্রদেশে পাঁচদিন আগে একটি কনসার্টও আয়োজন করে। নিহতের মধ্যে বেশিরভাগ নারী ও শিশু রয়েছে এবং তারা বেসামরিক নাগরিক।

জাতিসংঘ ও আরব লিগের সিরিয়াবিষয়ক বিশেষ দূত লাখদার ব্রাহিমি দেশটির সংকট কাটাতে আলোচনা করতে সোমবার দামেস্কে এসে পৌঁছানোর পরপরই এই হামলার ঘটনা ঘটল।

তবে সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সর্বশেষ খবরে বলা হচ্ছে, সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা হালফায়া শহরে মানুষের বিরুদ্ধে অপরাধ কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে এবং নারী ও শিশুরা তাদের হামলার শিকার হচ্ছে।

এতে আরো বলা হয়, সন্ত্রাসীরা হামলা করে এর দায় সিরীয় সেনা বাহিনীর ওপর চাপাচ্ছে যখন জাতিসংঘের দূত লাখদার ব্রাহিমি সিরিয়া সফরে রয়েছেন। অবশ্য টেলিভিশনে কি ধরনের হামলা হয়েছে তা সুনির্দিষ্ট করে বলা হয়নি।

সিরিয়ায় বিদ্রোহীরা আন্তর্জাতিক শক্তির সহায়তায় বিগত ২১ মাস ধরে সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আসছে। আর এই যুদ্ধে বিদ্রোহীদের দাবি অনুযায়ী এখন পর্যন্ত ৪৪ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণহানি হয়েছে।

হালফায়ার ঘটনাস্থলে থাকা সামির আল হামায়ী বার্তাসংস্থা রয়টার্স-কে বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে কতজন নিহত হয়েছেন, তা বলার কোন উপায় নেই। আমি সেখানে পৌঁছে দেখি মানুষের খণ্ডিত অসংখ্য দেহাবশেষ ও আহত মানুষ মাটিতে পড়ে আছে।’

তিনি জানান, ‘বিগত তিন দিন ধরে আমাদের ঘরে আটা নেই। এজন্য আজ সকলেই আমরা বেকারিতে জড়ো হয়েছিলাম। আর এখানে এসে সন্তান-সন্তুতিদের হারাতে হলো। আমি এখন পর্যন্ত নিজেও জানি না এই লাশের সারিতে আমার কোন নিকটাত্মীয় রয়েছেন কিনা না।’

টেলিভিশনে প্রচারিত অস্পষ্ট ভিডিওতে দেখা গেছে, রাস্তার পাশে অসংখ্য মানুষের দেহ পড়ে আছে। পাশেই একটি ভবন ধ্বংস হয়ে গেছে। উদ্ধারকর্মীরা ভবনের ধ্বংসস্তুপ থেকে জীবিতদের উদ্ধারের চেষ্টা করছেন।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক ‘সিরিয়ান অবজারভেটরি হিউম্যান রাইটস’ গ্রুপ জানিয়েছে, এ হামলায় ৫০ জনের বেশি মানুষ আহত হয়েছেন। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।’

এই হামলার ঘটনার পর বিদ্রোহীরা একটি ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে দিয়েছে, যাতে রাস্তায় বিচ্ছিন্ন দেহের অংশ, মৃতদেহ ও ধ্বংসপ্রাপ্ত ভবন দেখা যাচ্ছে। ঘটনার পরপর স্থানীয় জনগণকে দৌঁড়ে গিয়ে আহতদের উদ্ধারের চেষ্টা করতে দেখা গেছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।