বস্টনে দুটি শক্তিশালী বিস্ফোরণ, নিহত ৩

বস্টনে দুটি শক্তিশালী বিস্ফোরণে অন্তত তিনজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে ১৩০ জন। ঘটনাটি ঘটে বস্টন ম্যারাথনের প্রান্ত সীমা বা ফিনিশ লাইনে। বিস্ফোরণ দুটি কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানে ঘটে। এ সময় শত শত দৌড়বিদ কয়েক ঘণ্টাব্যাপী ম্যারাথন দৌড়ের শেষ সীমায় অবস্থান করছিল।  টেলিভিশনের ছবিতে দেখা যায়, পতাকায় সজ্জিত ম্যারাথনের ফিনিশিং লাইন বা শেষ সীমানা থেকে থেকে ধোয়ার কুণ্ডলী পাকিয়ে উঠছে। মুহূর্তের মধ্যেই কিছু একটার আঘাতে একজন প্রতিযোগী সেখানেই লুটিয়ে পড়ে। কয়েক সেকেন্ড পর যখন আতঙ্কিত পথচারীরা পালানোর পথ খুঁজছিল, তখনই রাস্তার পাশেই ঘটে দ্বিতীয় বিস্ফোরণ।

ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া ভিডিও-চিত্রেও দেখা যাচ্ছে বিস্ফোরণ স্থলের আশপাশের রাস্তা রক্তে রঞ্জিত হয়ে আছে।  সেই সঙ্গে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ধ্বংসস্তুপ। জরুরি সেবা-দাতা সংস্থাগুলো দ্রুততম সময়ের মধ্যেই ঘটনাস্থল পৌঁছে যায়।

আহত দর্শকদের নিকটস্থ অস্থায়ী চিকিৎসা কেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
পাশেই একটা হোটেল জরুরি ভিত্তিতে খালি করা হয়েছে।

সন্ত্রাস-বিরোধী কর্মকর্তারা সেখানে পৌঁছে তদন্ত করে দেখছেন এ ঘটনার সঙ্গে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কোনো যোগসাজশ রয়েছে কিনা। ঘটনাস্থলের সবচাইতে স্পষ্ট বিবরণ উঠে আসে পুলিশের বর্ণনাতে।

জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে বস্টন পুলিশের কর্মকর্তা এড ডেভিস বলছিলেন, বেলা দুইটা ৫০ মিনিটে বস্টন ম্যারাথনের ফিনিশ লাইনে ধারাবাহিক বিস্ফোরণ ঘটে।

‘দুটি বিস্ফোরণ স্থলের দূরত্ব ছিল ৫০ থেকে ১০০ মিটার। আমরা আহত সবাইকেই আমরা সরিয়ে নিয়েছি,’ বলছিলেন ডেভিস।

অবশ্য এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এই বিস্ফোরণ কোনো সন্ত্রাসী হামলার ফলাফল কিনা কিংবা কোনো ধরনের বোমার বিস্ফোরণ কিনা সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পারেনি কর্তৃপক্ষ।

তবে ডেভিস বলছেন, সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। মানুষজনকে ঘর থেকে বের না হতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। বিষ্ফোরণস্থলের আশপাশে সাময়িকভাবে বিমান চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

খবরে আরো বলা হচ্ছে, পুরো আমেরিকাজুড়েই স্পর্শকাতর জায়গাগুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট ওবামা এই ঘটনার পর জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া এক ভাষণে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, যে বা যারাই এ ঘটনার জন্য দায়ী তাদেরকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।
তিনি স্থানীয় জরুরি সেবা সংস্থাগুলোকে তাদের ভূমিকার জন্য প্রশংসা করেন। সূত্র: বিবিসি

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।