মিশরে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে, নিহত ২

মিশরের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির সমর্থক ও বিরোধীরা সারা দেশে বিক্ষোভ করেছে এবং মিশরের উত্তরাংশে ব্যাপক সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। আলেকজান্দ্রিয়ায় সহিংস ঘটনায় একজন মার্কিন নাগরিকসহ কমপক্ষে দুজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। রোববার বিরোধীরা বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে। রোববার মুরসির ক্ষমতায় আসার এক বছর হতে যাচ্ছে, আর এখনই তার পদত্যাগের দাবিতে আলেকজান্দ্রিয়াসহ সারা মিশরে এমন বিক্ষোভ চলছে। বিক্ষোভ সামলাতে পুলিশকে কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করতে হচ্ছে।একদিকে  মুরসির হাজার হাজার সমর্থক যেমন মাঠে রয়েছে তেমনি তার বিরোধীরাও ব্যাপক সংখ্যায় সক্রিয়। সারা দেশে উভয় পক্ষই সমাবেশ করেছে।

আলেকজান্দ্রিয়ায় সহিংস ঘটনায় একজন মার্কিন সাংবাদিকসহ কমপক্ষে দুজন ব্যক্তির মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

পোর্ট সাইদে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। সারা দেশে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে প্রচুর মানুষ আহত হয়েছেন।

মুরসির বিরোধীরা বলছে, তিনি দেশের সমস্যাগুলোর সমাধানে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারেননি। অপরদিকে তার সমর্থকরা বলছেন মুরসিকে আরো সময় দেয়া উচিত।

ওদিকে মুরসির দল মুসলিম ব্রাদারহুডের একজন মুখপাত্র গিহাদ এল হাদ্দাদ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন মুরসিকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দিলে দেশটিতে গণতান্ত্রিক শাসনের অবসান ঘটতে পারে।

তিনি বলেন, “এই মুহূর্তে যারা এসব বাজে বকছেন এবং রাস্তায় সহিংসতা চালাচ্ছেন তারা ভাড়া করা গুন্ডা এবং তারা আসলে পূর্বতন আমলের সমর্থিত লোকজন। তারা ভাবছেন মুরসিকে যদি সরিয়ে দেয়া যায় তাহলে কতইনা ভালো হয়। কিন্তু এর বিপরীতে যে বিকল্প রয়েছে তা হলো সামরিক একনায়কতন্ত্র অথবা সাবেক আমলের অনুসারীদের অভ্যুত্থান।”

সংবাদদাতারা বলছেন, মিশরের নাগরিকরা আরো সহিংসতার আশংকায় খাবার ও জ্বালানি মজুদ করছে। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে মুসলিম ব্রাদারহুডের কার্যালয়ে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। সূত্র: বিবিসি

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।