গাজার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসরাইলের বিমান হামলা

উন্মত্ত ইসরাইল এবার গাজার একটি খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিমান হামলা চালিয়েছে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়টির বেশিরভাগ অংশই মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

 

শনিবার সকালে রাফার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন বর্বর ইসরাইল হামলা চালায় তখন সেখানে ক্লাস চলছিল।

 
হামলার পর আতঙ্কিত ছাত্ররা নীচে নেমে আসেন।

 

ইসরাইলি প্রতিরক্ষা বিভাগ দাবি করেছে, সেখানে অস্ত্রশস্ত্র মজুদ ছিল।

 

শনিবার গাজার অন্তত ২০০ স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে ইসরাইল।

 

এদিকে শুক্রবার রাফায় এক ইসরাইলি সেনা নিখোঁজ হওয়ার পর সেই স্থানে ভয়াবহ তাণ্ডব চালাচ্ছে ইহুদিবাসী বর্বর সেনারা।

 

সেখানে হামাস যোদ্ধাদের সাথে ইসরাইলি বাহিনীর ব্যাপক লড়াইয়ের খবর পাওয়া গেছে।

 

রাফাহ সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে ইসরাইল।  ইসরাইলি সেনারা হুমকি দিয়েছে যে রাফার রাস্তায় কোনো গাড়ি চলাচল করলে তাকেও লক্ষ্যবস্তু বানানো হবে।

 

এদিকে ইসরাইল আবার গাজার ইমাম শফি মসজিদ নামের একটি মসজিদে হামলা চালিয়েছে। বর্বর  ইসরাইলি হামলা থেকে কোনো স্থাপনাই নিরাপদ থাকছে না।

 

ইসরাইলি হামলার জবাবে হামাস যোদ্ধারা শনিবারও এশকল, তেল আবিব ও বিয়ারশেবায় রকেট হামলা চালিয়েছে।

 

এদিকে ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে,  গত ২৪ ঘণ্টায় ইসরাইলি হামলায় অন্তত ১৫০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।

 

এর মধ্যে শনিবার সকালে ইসরাইলি হামলায় একটি পরিবারের সাতজন নিহত হয়।

 

এ নিয়ে গত ২৬ দিনের ইসরাইলি হামলায় অন্তত ১,৬৫৪ ফিলিস্তিনি নিহত এবং প্রায় ৯,০০০ জন আহত হয়েছেন।

 

জাতিসংঘ  জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে ৩০০ জনের বেশি শিশু।

 

সূত্র; আল জাজিরা/ প্রেস টিভি

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।