ভূরাজনীতির খেলায় সম্পর্ক জোরা লাগাতে উদ্যোগী ইসলামাবাদ-মস্কো

ঊনিশ’ আশির দশকে রাশিয়ার সাথে পাকিস্তানের ছিল বৈরি সম্পর্ক। আফগানিস্তান থেকে রাশিয়ান সৈন্যদের বিতাড়িত করতে জোরালো ভূমিকা পালন করেছিল পাকিস্তান। তবে সাম্প্রতিক ভূরাজনীতির কারণে এখন সম্পর্ক জোরা লাগাতে উদ্যোগী হয়েছে ইসলামাবাদ ও মস্কো। বৃহসস্পতিবার ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক নিবন্ধে এ তথ্য জানানো হয়।

 

বৃহস্পতিবারই পাকিস্তান জানিয়েছে যে তারা রাশিয়া থেকে চারটি মিআই-৩৫ অ্যাটাক হেলিকপ্টার কিনছে। এর দাম প্রকাশ করা হয়নি। এর আগে দুটি দেশের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলের সফর বিনিময় হয়।

 

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ বলেছেন রাশিয়ার সাথে প্রতিরক্ষা, বাণিজ্য, জ্বালানিসহ বহুমুখী সম্পর্ক গড়তে চায় তার দেশ। সম্প্রতি রাশিয়ার উফায় সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেন নওয়াজ। ‘পাকিস্তান সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে আমেরিকা গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে থাকলেও তার বিকল্প দরকার,’ বলছিলেন কূটনীতিক জাফর হিলালি।

 

যেমন করাচি থেকে লাহোর পর্যন্ত গ্যাস পাইপলাইন তৈরি করছে রাশিয়া। ২০১৮ সালে এর নির্মাণ কাজ শেষ হলে এটি দিয়ে দৈনিক ২০০ কোটি ঘনফুট গ্যাস সঞ্চালন করা যাবে- যা দেশটির মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের প্রায় অর্ধেক।

 

সত্তরের দশকে রাশিয়া করাচিতে একটি ইস্পাত কারখানা তৈরি করার পর পাকিস্তানে এতোবড় কোনো প্রকল্পে জড়ায়নি মস্কো। স্মরণ করা যেতে পারে রাশিয়ার সাথে পাকিস্তানের চিরবৈরি ভারতের সম্পর্ক ছিল অত্যন্ত মজবুত। তবে সম্প্রতি ভারত আমেরিকার দিকে ঝুঁকছে আর ভারতের প্রতিদ্বন্দ্বী চীনের সাথে সম্পর্ক মজবুত হচ্ছে রাশিয়ার।

 

অন্যদিকে চীনের সাথে পাকিস্তানের সম্পর্ক নওয়াজের ভাষায় ‘মধুর চেয়েও মিষ্টি’।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।