রাজাপুরে স্কুল শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ফেসবুকে মিথ্যা অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

ঝালকাঠির রাজাপুর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা নাছরিন আক্তার পপির নামে ভূয়া ফেসবুক আইডি থেকে মিথ্যা অপপ্রচার চালানোর প্রতিবাদে শনিবার সকালে রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। নাছরিন আক্তার পপি লিখিত বক্তব্যে বলেন, একটি কুচক্রি মহল সামাজিকভাবে হেয় ও তার সুনামরাজাপুরে স্কুল শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ফেসবুকে মিথ্যা অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ক্ষুন্ন করা লক্ষ্যে গত ২৪ জুলাই রাতে গফ. জধভর নামে একটি ভূয়া আইডি দিয়ে আমার ছবি ও ডাক নাম পপি ব্যবহার করে পোষ্ট দেয়া হয়েছে যে,‘পপি নামের এই মহিলা জাতিকে কি শিক্ষা দিবে? তিনটি ছেলে মেয়ের মা হওয়া সত্ত্বেও এই মহিলা রবিউল নামের একটি ছেলের সাথে চলে গেছে স্বামী ছেড়ে। উক্ত পোষ্ট উদ্দেশ্যে প্রনোদিত ও হয়রানি মূলক মিথ্যা ও বানোয়াট।

 

যা অদৌ সত্য নয় এবং আমি জড়িত নই। উক্ত পোষ্টের আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। প্রকৃতপক্ষে এ ঘটনা ঘটেছে আমার বিদ্যালয়ের অন্য এক সহকারি শিক্ষিকার সাথে, যার নাম আফিফা তাজরিমিন পপি। তার বাড়ি সাতুরিয়া গ্রামে। রবিউলের সাথে আফিফা তাজরিমিন পপির দ্বিতীয় বিয়েও হয়েছে বলে শুনেছি। নাছরিন আক্তার পপি লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন, ফেসবুকে আমার ছবি ও ডাক নাম ব্যবহার করে বিভ্রান্তিমূলক মিথ্যা পোষ্ট করে আমার নামে মিথ্যা অপবাদ দেয়ায় আমার আত্মীয়স্বজনসহ রাজাপুরের অধিকাংশ মানুষ আমাকে ভুল বুঝেছে।

 

যা মোটেও সঠিক নয়। আমার দুটি সন্তান এবং স্বামী নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সুখের সাথে সংসার করে আসছি এবং সুনামের সাথে দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষকতা করে আসছি। এ সব কারনে একটি কুচক্রি মহল ইর্ষান্বিত হয়ে এসব অপপ্রচার চালাচ্ছে। এ ঘটনায় রাজাপুর থানায় জিডি করেছেন এবং আইসিটি আইনে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তিনি পুলিশ ও প্রশাসনসহ সকলের আশুহস্তপেক্ষ কামনা করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে তার স্বামী নুরুল আলম উপস্থিত ছিলেন।