রাজাপুরে পুলিশের ওপর হামলায় এসআইসহ আহত-২, আটক ৩ - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :
২৩ জনের বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা

রাজাপুরে পুলিশের ওপর হামলায় এসআইসহ আহত-২, আটক ৩



রহিম রেজা, ঝালকাঠি থেকে, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

ঝালকাঠির রাজাপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের উত্তেজনা থামাতে গিয়ে হামলার শিকার হয়ে রাজাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফিরোজ আলম ও কনস্টেবল সাহেব আলী গুরুতর আহত হয়েছেন। বুধবার (২৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় উপজেলার উত্তর পুটিয়াখালি গ্রামের সাতআনি এলাকায় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত এসআই ফিরোজ ও কনস্টেবল সাহেব আলী রাজাপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি। হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে ঘটনাস্থল থেকে আব্দুল হকের স্ত্রী মারিয়া বেগম, মেয়ে হাবিবা বেগম ও আসমা আক্তারকে আটক করে।

 

রাতেই পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এদিকে এ ঘটনায় বুধবার গভীর রাতেই হামলার শিকার এসআই ফিরোজ আলম বাদি হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ১৫ জন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। বর্তমানে ওই এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। পুলিশ জানায়, উত্তর পুটিয়াখালি গ্রামের সাতআনি এলাকায় ওই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের সাথে তাঁর চাচা আব্দুল হকের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিলো। এ নিয়ে আদালতেও মামলা চলছে।

 

মঙ্গলবার বিরোধী ওই জমির মাটি কেটে দখলের নেওয়ার চেষ্টা করলে বুধবার সকালে আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী পাখি বেগম বাদী হয়ে আব্দুল হকসহ তার ছেলে-মেয়েদেরকে বিবাদী করে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। বুধবার সকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে জমির কাগজপত্র নিয়ে থানায় আসতে বলে। কিন্তু অভিযুক্তরা বিকেলে থানায় না এসে বিরোধীয় জমিতে মাটিকাটা শুরু করলে নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা, বাকবিতন্ডা ও মারামারি শুরু হয়।

 

খবর পেয়ে রাজাপুর থানার এসআই ফিরোজ আলম ও কনস্টেবল সাহেব আলী ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করলে বিবাদী আব্দুল হকসহ তার ছেলে-মেয়েরা লোহার শাবোল ও লাঠি দিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে কনস্টেবল সাহেব আলীর মাথা ফেটে যায় এবং এসআই ফিরোজকে পিটিয়ে আহত করা হয়। খবর পেয়ে রাজাপুর থানার ওসির নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে আহত ফিরোজ ও সাহেব আলীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। আহত এসআই ফিরোজ আলম জানান, বাদি ও বিবাদীদের মধ্যে উত্তেজনা ও মারামারির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের শান্ত করার চেষ্টা শুরু করলে আব্দুল হকের ছেলে জাহিদ, মনির, হাবিবা ও আসমাসহ ১০/১৫ জন মিলে তাদের উপরে পরিকল্পিতভাবে হামলা চালালে তারা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং গুরুত্¦র আহত হন।

 

আব্দুল হকের স্ত্রী গ্রেফতারকৃত মারিয়া বেগম ও মেয়ে হাবিবা বেগম পুলিশ হেফাজতে জানান, ‘‘তাদের সাথে জমি নিয়ে আনোয়ারদের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ ও মামলা চলছে। গতকাল তারা জমিতে মাটি কাটতে গেলে এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ও মারামারি শুরু হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে মারামারি থাামানোর সময় তারা আহত হয়। তবে পুলিশকে কারা মেরেছে তা তারা জানেন না’’। রাজাপুর থানার ওসি মো. শামসুল আরেফিন বলেন, ‘এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। হামলায় জড়িত তিনজনকে আটক করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’

 


এ সম্পর্কিত আরো খবর

ঝালকাঠি এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ