ঝিনাইদহে পুরোহিতকে গলা কেটে হত্যা

ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় অনন্ত গোপাল গাঙ্গুলি (৬৫) নামের এক পুরোহিতকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার সকাল ৯টার পর করাতিপাড়ার বাড়ি থেকে সাইকেলে করে মন্দিরে যাওয়ার সময় মহিষাডাঙ্গা গ্রামে মাঠে এ ঘটনাটি ঘটে।
নিহত অনন্ত গোপাল গাঙ্গুলি নলডাঙ্গা মন্দিরের পুরোহিত ছিলেন। তিনি উপজেলার করাতিপাড়া গ্রামের মৃত সত্য গোপাল গাঙ্গুলির ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সকালে করাতিপাড়ার বাড়ি থেকে সাইকেলে মন্দিরে যাচ্ছিলেন আনন্দ গোপাল। পথে মহিষাডাঙ্গা গ্রামের মাঠে মোটরসাইকেলে এসে একদল দুর্বৃত্ত তাকে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের খবরে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

সহকারী পুলিশ সুপার গোপীনাথ কানজিলাল জানান, মোটরসাইকেলে করে আসা তিনজন পুরোহিতের ওপর হামলা করে। তারা প্রথমে বাঁশ দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এর পর জবাই করে হত্যার পর মোটরসাইকেলে করে চলে যায়।

সাম্প্রতিক সময়ের বিভিন্ন হত্যাকাণ্ডের ধরনের সঙ্গে মিল থাকায় এ ঘটনার পেছনেও জঙ্গিদের হাত থাকতে পারে বলে সন্দেহ করছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

গত রোববার চট্টগ্রামে পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে গুলি করে হত্যা করে মোটরসাইকেলে আসা দুর্বৃত্তরা।

ওইদিনই নাটোরের বড়াইগ্রামে খ্রিস্টান মুদি ব্যবসায়ী সুনীল গোমেজকে নিজ দোকানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

পরে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস সুনীল গোমেজকে হত্যার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দেয়।

এ ছাড়া গত মাসে ঝিনাইদহের পার্শ্ববর্তী কুষ্টিয়ায় এক হোমিও চিকিৎসককে কুপিয়ে হত্যা করে পরে খ্রিস্টান ধর্ম প্রচারের অভিযোগ এনে তার দায় স্বীকার করে আইএস।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।