নাঙ্গলকোটে ছাত্রলীগ সভাপতিকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা!

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুর রাজ্জাক সুমনকে ছাত্রলীগের অপর একটি পক্ষ কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা জের ধরে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন ওরফে মিশুর নেতৃত্বে এই হামলা চালানো হয়। আজ রবিবার দুপুর ২টার দিকে নাঙ্গলকোট পৌর বাজারের একটি হোটেলে এই ঘটনা ঘটে।

 

 

এ ঘটনার প্রতিবাদে উপজেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নাঙ্গলকোট পৌর বাজারে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিল করে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের নাঙ্গলকোট স্টেশন এলাকায় ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী কর্ণফুলী এক্সপ্রেস ট্রেনটি অবরোধ করে রাখে। পরে পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলে প্রায় দুই ঘন্টা পর বিকেল ৫টার দিকে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। এছাড়া ঘটনার পর বাজারে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিল শুরু হলে বাজারের সকল দোকান-পাট বন্ধ করে দেন ব্যবসায়ীরা। এ সময় চারদিকে আতংক ছড়িয়ে পড়ে।

 

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ওইদিন দুপুরে উপজেলা পরিষদের একটি অনুষ্ঠান অংশগ্রহন শেষে দুপুরের খাবার খেতে নাঙ্গলকোট পৌর বাজারের মোল্লা হোটেলে যান ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুর রাজ্জাক সুমনসহ কয়েকজন দলীয় নেতাকর্মী। এ সময় রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জের ধরে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন মিশুর নেতৃত্বে ১০/১২ জনের একদল লোক সুমনকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টাা চালায়। পরে স্থানীয় লোকজন ছুঁটে এসে আশংকাজনক অবস্থায় সুমনকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এঘটনায় আনোয়ার হোসেন মিশু এর বাড়িতে হামলা চালিয়েছে ক্ষুদ্ধ জনতা।

 

 

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক মামুন অভিযোগ করেন, ছাত্রলীগ সভাপতি আবদুর রাজ্জাক সুমনকে হত্যার উদ্দেশ্যেই আনোয়ার হোসেন মিশু নেতৃত্বে ১০/১২ জন সন্ত্রাসী নিয়ে হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা ছাত্রলীগ নেতা সুমনের দুই হাত, চোখের নিচ ও মাথায় এলোপাতাড়ি কুপিয়েছে। তাঁর অবস্থা এখন আশংকাজনক। এ ঘটনার প্রতিবাদে এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে নাঙ্গলকোটের বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ সমাবেশ করছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা বলে জানান তিনি।

 

এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন মিশু।বলেন, এসব বিষয়ে আমি বিছু জানি না। তবে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি আবদুর রাজ্জাক সুমনের লোকেরা আমার উপর হামলা চালায়।

 

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আইয়ুব বলেন, আমরা জেনেছি দুপুরের খাবার খেতে গেলে মিশু নামে এক ছাত্রলীগ নেতার নেতৃত্বে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুর রাজ্জাক সুমনকে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ছবি ঃ নাঙ্গলকোটে হামলায় গুরুত্বর আহত ছাত্রলীগ সভাপতি আবদুর রাজ্জাক সুমন।