টাঙ্গাইলের চুরি করে বই বিক্রির সময় সহকারী শিক্ষা অফিসার জনতার হাতে আটক

টাঙ্গাইল ০৭ সেপ্টেম্বর।। টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বই চুরি করে বিক্রির করার সময় সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার (এটিও) এম গোলাম মহিউদ্দিনকে জনতা হাতেনাতে আটক করেছেন। পরে গাড়ি বোঝাই চুরিকৃত বই ফেরত আনলে জনতা তাকে ছেড়ে দেয়। শুক্রবার বন্ধের দিনে বই চুরি করে বিক্রির চেষ্টার এ ঘটনটি ঘটেছে মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে বিএডিসি গোডাউন থেকে।

উপজেলা শিক্ষা অফিস  সূত্রে জানা যায়, ইউএনও অফিসের সামনে অবস্থিত বিএডিসির গোডাউনটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বই রাখার জন্য দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। শুক্রবার বন্ধের দিন দুপুরে নামাজের সময় সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার কে এম গোলাম মহিউদ্দিন গোডাউন পরিষ্কারের নামে উপজেলার ভাওড়া গ্রামের ইলিয়াস মিয়া নামে এক ব্যাক্তির কাছে সেখান থেকে সরকারী বই চুরি করে বিক্রির জন্য একটি গাড়িতে উঠিয়ে টাঙ্গাইলের উদ্যশ্যে পাঠান। এ সময় মির্জাপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জালাল উদ্দিন বিষয়টি দেখে ফেলেন। এসময় এলাকাবাসী সেখানে উপস্থিত হয়ে বই কোথায় নেয়া হচ্ছে জানতে চাইলে মহিউদ্দিন কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। পরে জনতার তীব্র প্রতিবাদের মুখে তিনি পিকআপটি ফেরত নিয়ে বই পুনরায় গোডাউনে নিয়ে আসেন।

মির্জাপুর পৌর সভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জালাল উদ্দিন জানান, দুপুরে তিনি ওই স্থান দিয়ে যাওয়ার সময় পিকআপে বস্তা বোঝাই করে বই উঠাতে দেখেন। সে সময় তিনি এটিও মহিউদ্দিনকে বই কোথায় নেন জানতে চাইলে বলেন গোডাউন পরিস্কার করা হচ্ছে। উর্দ্ধতন কতৃপক্ষকে নিদের্শে বইগুলো টাঙ্গাইলে পাঠানো হচ্ছে। কিন্তু এর আগেই সে আরও একবার একই কায়দায় পিকআপে বই উঠিয়ে টাঙ্গাইলের দিকে নিয়েছিল এ কারনে তার কথায় সন্দেহ হয়। পরে স্থানীয় জনতার প্রতিবাদের মুখে পাচার হওয়া দুই ট্রাক বইয়ের মধ্যে একটি ট্রাক থেকে কিছু বই গোডাউনে ফেরত আনেন বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত এটিও গোলাম মহিউদ্দিন জানান, গোডাউন পরিষ্কার করার জন্য শ্রমিকদের মজুরি দিতে দুই বস্তা বই বিক্রির জন্য উপজেলার ভাওড়া গ্রামের ইলিয়াস মিয়াকে দেওয়া হয়েছিল। পরে জনতার প্রতিরোধের মুখে বইগুলো পুনরায় গোডাউনে ফেরত আনা হয়েছে।

এ বিষয়ে মির্জাপুর উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান,  চুরি করে বই বিক্রির চেষ্টার বিষয়টি তিনি শুনেছেন। এ বিষয়ে শনিবার জরুরী বৈঠক করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তাছাড়া গোডাউনের চাবি সুলতান আহমেদের কাছ থেকে মহিউদ্দিন কৌশলে নিয়েছেন বলেও তিনি জানান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।