বিমানবন্দরে জব্দ স্বর্ণ এক গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যের! - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

বিমানবন্দরে জব্দ স্বর্ণ এক গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যের!



(খবর তরঙ্গ ডটকম)

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জব্দ করা সাড়ে ১৩ কেজি স্বর্ণ একটি শীর্ষ গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য আজিজ নামক এক ব্যক্তির! এ ঘটনায় আটক মনোয়ারুল হক পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ এ তথ্য দিয়েছেন।সোমবার সন্ধ্যায় বিমানবন্দরের আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) এএসপি মিনহাজ এ কথা জানিয়েছেন।তিনি জানান, এপিবিএন’র জিজ্ঞাসাবাদে মনোয়ারুল জানিয়েছেন, দুবাইয়ের মাড়োয়ারি ব্যবসায়ী দেবু বাবু  নামের এক ব্যক্তি এ স্বর্ণের মালিক।  দুবাই থেকে ফেরদৌস নামের অপর এক ব্যক্তি তাকে হযরত শাহজালাল আন্তজাতিক বিমানবন্দরে কর্মরত একটি বিশেষ গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য আজিজের কাছে এগুলো হস্তান্তর করার জন্য দেন।মনোয়ারুল জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় ফ্লাই দুবাই এর এফজেড-৫৮৩ ফ্লাইটে দুবাই থেকে হযরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন তিনি। এ পর্যন্ত তিনি পাঁচ  বার  দুবাই গেছেন এবং একাধিকবার সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়া গেছেন। নোয়ারুলের পাসপোর্টে  কালিগঞ্জ গাজীপুরের একটি ঠিকানা থাকলেও তিনি পুলিশকে জানান, বায়তুল মোকাররম মসজিদ মার্কেটে তার একটি চশমার দোকান রয়েছে।উল্লেখ্য, সোমবার সকালে হযরত শাহজালাল আন্তজাতিক বিমানবন্দরে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) সদস্যরা মনোয়ারুল হক (৪৬) নামের ওই ব্যক্তিকে বোডিং ব্রিজ-১ আগমনী গেট দিয়ে বের হয়ে ছোট ট্রলিব্যাগসহ টয়লেটে প্রবেশ করতে দেখেন। সন্দেহ হওয়ায় সাদা পোশাকে কয়েকজন পুলিশ বাথরুমে ঢোকেন। টয়লেটের বাইরে দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়ে কোনো সাড়াশব্দ না পাওয়ায় তাদের সন্দেহ আরো ঘনীভূত হয়। এক পর্যায়ে মনোয়ারুল বাথরুম থেকে বের হয়ে গেলে এক এপিবিএন সদস্য মনোয়ারুলকে অনুসরণ করেন। এ সময় ওই সদস্য বাথরুমের ফ্লাশ ট্যাংকের ঢাকনা কিছুটা উঠানো দেখতে পান এবং গাঢ় কফি রংয়ের একটি পলিথিনে মোড়ানো প্যাকেট দেখতে পেয়ে দায়িত্বরত এপিবিএন’র এএসপি মিনহাজুল ইসলামকে অবহিত করেন।

এএসপি মিনহাজ সঙ্গে সঙ্গে বিমানবন্দরে কর্তব্যরত ম্যাজিস্ট্রেটসহ অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে বাথরুমের ফ্লাশ ট্যাংকের ভিতর থেকে পলিথিনে মোড়ানো ৬টি স্বর্ণবার আকৃতির দণ্ডে স্কচটেপে মোড়ানো স্বর্ণের বিস্কুটসহ ১১৭টি  বিস্কুট উদ্ধার করেন।

স্বর্ণের ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার পর এপিবিএন’র গোয়েন্দা সদস্যরা  মনোয়ারুলকে অনুসরণ করতে থাকেন। পরে তাকে  বিমানবন্দরের আগমনী কনকোর্স হল থেকে আটক করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, মনোয়ারুল রোববার সকালে দুবাই যান এবং সোমবার ফেরত আসেন। স্বর্ণ ছাড়াও তার সঙ্গে থাকা লাগেজে তল্লাশি করে সনি এরিকসনের পাঁচটি দামী মোবাইল,  বেশ কিছু মেমোরি কার্ড ও অন্যান্য ইলেকট্রনিক্স মালামাল পাওয়া গেছে যার আনুমানিক মূল্য ৩ লাখ টাকা।

এ ব্যাপারে মনোয়ারুলসহ সোনা পাচারে জড়িতদের বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


পূর্বের সংবাদ
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০