তানভীরসহ ২৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ঢাকা, অক্টোবর ০৪ (খবর তরঙ্গ ডটকম)- আড়াই হাজার কোটি টাকা কেলেঙ্কারির ঘটনায় হলমার্ক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর মাহমুদ ও সোনালী ব্যাংকের রূপসী বাংলা শাখার তৎকালীন ব্যবস্থাপক কে এম আজিজুর রহমানসহ ২৭ জনের বিরুদ্ধে ১১টি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বৃহস্পতিবার দুপুরে দুদকের উপ-পরিচালক জয়নাল আবেদীন শিবলী এ মামলাগুলো করেন। মামলায় হলমার্কের এমডি তানভীর মাহমুদকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। তিনি ছাড়াও সোনালী ব্যাংক রূপসী বাংলা শাখার (তৎকালীন শেরাটন) ২০ কর্মকর্তা এবং হলমার্কের আরো ৬ কর্মকর্তাকে আসামি করা হয়েছে।

হলমার্ক গ্রুপের প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা জালিয়াতির মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগে এসব মামলা করা হয়েছে।

মামলার উল্লেখযোগ্য আসামিরা হলেন- হলমার্কের এমডি তানভীর মাহমুদ, চেয়ারম্যান ও তার স্ত্রী জেসমিন ইসলাম, জেনারেল ম্যানেজার তুষার আহমেদ, সোনালী ব্যাংকের সাবেক এমডি হুমায়ুন কবির, ডিজিএম এ কে এম আজিজুর রহমান, এজিএম সাইফুল হাসান প্রমুখ।

 

২০১০ সাল থেকে ২০১২ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত সোনালী ব্যাংকের রূপসী বাংলা কার্যালয় সহ একাধিক কার্যালয় থেকে অবৈধভাবে ৩ হাজার ৬০৬ কোটি টাকা সরানোর অভিযোগ রয়েছে হলমার্ক গ্রুপ, নকশি নিট কম্পোজিট, খান জাহান আলী স্যুয়েটার্স এবং ডিএন স্পোর্টস সহ ৬টি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে হলমার্ক গ্রুপ একাই সরিয়েছে ২ হাজার ৬০০ কোটি টাকা।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমে বিভিন্ন প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে আমলে নেয় দুদক। এরপর সোনালী ব্যাংক এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুরোধে এই অর্থ কারসাজির প্রাথমিক অনুসন্ধান কাজ শুরু করে কমিশন। দুদকের উপপরিচালক মীর জয়নুল আবেদিন শিবলীর নেতৃত্বে ৬ সদস্যের একটি বিশেষ দল তদন্ত চালাচ্ছে।

এই অর্থ কারসাজির ঘটনায় এ পর্যন্ত তানভীর মাহমুদ, এ কে এম আজিজুর রহমান, হলমার্ক গ্রুপের জিএম তুষার আহমেদ, চেয়ারম্যান জেসমিন আহমেদ, সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের তৎকালীন ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ এবং সোনালী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের তৎকালীন সদস্যসহ মোট ৭৮ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।