আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবস, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে শ্রদ্ধা - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবস, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে শ্রদ্ধা



(খবর তরঙ্গ ডটকম)

ঢাকা, ২১ নভেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)-সশস্ত্র বাহিনী দিবসে শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সামরিক বাহিনীর সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমান বুধবার সকাল ৮টায় ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে পুষ্পস্তবকও অর্পণ করেন। তিন বাহিনীর একটি চৌকষ দল এ সময় সামরিক কায়দায় অভিবাদন জানায়, বিউগলে বাজানো হয় করুণ সুর। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এ সময়ও বিউগল বাজিয়ে শহীদদের প্রতি সামরিক কায়দায় সালাম জানানো হয়। তিন বাহিনীর প্রধান এবং সশস্ত্র বাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

শ্রদ্ধা জানানো শেষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী দুজনেই শিখা অনির্বাণে দর্শনার্থী বইয়ে সই করেন।

পরে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল ইকবাল করিম ভূইয়া, নৌ-বাহিনী প্রধান ভাইস এডমিরাল জহির উদ্দিন আহমেদ এবং বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার মার্শাল মোহাম্মদ ইনামুল বারী নিজ নিজ বাহিনীর পক্ষ থেকে শিখা অনির্বাণে ফুল দেন।

সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর প্রধানরা পরে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এরপর বীর শ্রেষ্ঠদের উত্তরাধিকারী এবং নির্বাচিত খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীদের নিয়ে আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালের ২১ নভেম্বর সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সদস্যরা সম্মিলিতভাবে দখলদার পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে সমন্বিত আক্রমণের সূচনা করে। এরপর থেকে প্রতিবছর ২১ নভেম্বর সশস্ত্র বাহিনী দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলগুলো বুধবার বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করছে। জাতীয় দৈনিকগুলো প্রকাশ করেছে বিশেষ ক্রোড়পত্র।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনী দিবসে বাণী দিয়েছেন। সশস্ত্র বাহিনীর পরিচালনাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

দেশের সব সেনানিবাস, নৌ-ঘাঁটি ও স্থাপনা এবং বিমান ঘাঁটির মসজিদে দেশের কল্যাণ ও সমৃদ্ধি কামনা করে বুধবার ফজর নামাজের পর বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হয়।

এদিন ঢাকা (সদরঘাট), নারায়ণগঞ্জ, চট্টগ্রাম, খুলনা ও বরিশালে বিশেষভাবে সজ্জিত নৌ-বাহিনী জাহাজগুলো বুধবার দুপুর ২টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। দেশের সব সেনানিবাস, নৌ ও বিমান ঘাঁটিতেও বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন রয়েছে।

সন্ধ্যায় ঢাকা সেনানিবাসের সেনাকুঞ্জে সশস্ত্র বাহিনী আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেতার পাশাপাশি দেশের রাজনীতিক, বিচারপতি, কূটনীতিক ও ঊর্ধ্বতন বেসামরিক কর্মকর্তারাও যোগ দেবেন।


জাতীয় এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০