এফবিসিসিআই নির্বাচন,চলছে ভোট গ্রহণ - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

এফবিসিসিআই নির্বাচন,চলছে ভোট গ্রহণ



(খবর তরঙ্গ ডটকম)

ঢাকা, নভেম্বর ২৪ (খবর তরঙ্গ ডটকম)-  শীর্ষ ব্যবসায়ী সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফবিসিসিআই) নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলছে।রাজধানীর মতিঝিলে ফেডারেশন ভবনে শনিবার সকাল ৯টায় শুরু হয় ভোটগ্রহণ, চলবে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত। সন্ধ্যায় নির্বাচনের ফল প্রকাশ করবে নির্বাচনী বোর্ড।পরিচালক নির্বাচন শেষে আগামী ২৬ নভেম্বর সভাপতি, প্রথম সহ-সভাপতি, সহ-সভাপতি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২৯ নভেম্বর চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হবে।এবারের নির্বাচনে ৩০টি পরিচালক পদের বিপরীতে দুটি পানেল থেকে ৬৩ জন প্রার্থী হয়েছেন। এর মধ্যে চেম্বার গ্রুপে ৩০ জন ও অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপে ৩৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের চেয়ারম্যান কাজী আকরাম উদ্দীন নেতৃত্বাধীন প্যানেল আর এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি আনিসুল হক সমর্থনপুষ্ঠ গণতান্ত্রিক পরিষদ।

এবার নির্বাচনে দুই পক্ষেরই প্রতিশ্রুতি, নির্বাচিত হলে তারা সভাপতি পদে সরাসরি নির্বাচনের ব্যবস্থা করবেন। নির্বাচিত হলে ব্যাংকঋণের সুদের হার কমানোর দাবি বাস্তবায়নের জন্য সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়ারও অঙ্গীকার করেছে দুই পক্ষ।

৭৩টি ব্যবসায়ী চেম্বার ও ৩২৬টি অ্যাসোসিয়েশন এফবিসিসিআইয়ের সদস্য। এর মধ্যে ‘এ’ ক্যাটাগরির ৫০টি চেম্বার থেকে ৬ জন করে এবং ‘বি’ ক্যাটাগরির ২৩টি চেম্বার থেকে ৪ জন করে ভোটার রয়েছেন।

এর বাইরে ‘এ’ ক্যাটাগরির ৩১৮টি অ্যাসোসিয়েশন থেকে ৫ জন করে এবং ‘বি’ ক্যাটাগরির আটটি অ্যাসোসিয়েশন থেকে ৪ জন করে ভোট দেওয়ার সুযোগ পাবেন।

এ হিসাবে এবারের নির্বাচনে মোট ১ হাজার ৯৯৮ জন ভোট দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন, যাদের মধ্যে চেম্বার গ্রুপের ৩৯০ জন এবং অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপের ১ হাজার ৬০৮ জন।

প্রতি দুই বছর পরপর এফবিসিসিআইর পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচন হয়। পর্যায়ক্রমে চেম্বার ও অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে প্রতি দুইবছর পরপর সভাপতি নির্বাচন করা হয়।

১৯৭৩ সালে এফবিসিসিআই প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর সভাপতি পদে সরাসরি নির্বাচন হতো ২০০২ সাল পর্যন্ত। এরপর থেকে প্রায় সব নির্বাচনেই সরাসরি নির্বাচনের ব্যবস্থা করার আশ্বাস দিয়ে থাকেন প্রার্থীরা। যদিও সেটা পূরণ হয় না।


জাতীয় এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০