আজ ঐতিহাসিক স্বৈরাচার পতন দিবস

ঢাকা, ০৬ ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- বৃহস্পতিবার ঐতিহাসিক স্বৈরাচার পতন দিবস। ১৯৯০ সালের এই দিনে বাংলাদেশের গণতন্ত্রকামী জনতার তীব্র আন্দোলনের মুখে স্বৈরশাসক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের পতন ঘটে। এদিন নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের বিজয় অর্জিত হয়েছিল। এর মধ্য দিয়ে এরশাদের নয় বছরের স্বৈরশাসনের অবসান হয়। মুক্তি পায় গণতন্ত্র।১৯৮২ সালের মার্চ মাসে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ অবৈধ পথে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে সামরিক শাসন কায়েম করেন। ১৯৮৩ সালের মধ্য ফেব্রুয়ারি থেকে ছাত্রসমাজ শুরু করে এরশাদ-বিরোধী আন্দোলন। দীর্ঘ ৮ বছর ধরে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন চলে রাজপথে।

আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ওয়ার্কার্স পার্টি, সিপিবি, জাসদ (ইনু)-র মতো প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো এই আন্দোলনে যোগ দিলে স্বৈরাচারী এরশাদ সরকারের বিরুদ্ধে গণরোষ তীব্র হয়ে ওঠে। আন্দোলন করতে গিয়ে রাজপথে প্রাণ দিতে হয় নূর হোসেন, সেলিম, দেলোয়ার, ডা. মিলনসহ অনেক অকুতোভয় মানুষকে। রক্তের সিঁড়ি বেয়ে উত্তাল হয়ে ওঠে ঢাকার রাজপথ। সামরিক শিকলে বন্দি গণতন্ত্র মুক্তির আন্দোলনের চূড়ান্ত রূপরেখা তৈরি হয় ৯০-এর ১৯ নভেম্বর। ওই দিনই তিনটি জোট ঐক্যবদ্ধভাবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের রূপরেখা ঘোষণা করে। পতন হয় স্বৈরাচারী এরশাদ সরকারের। শুরু হয় গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রা।

স্বৈরাচার পতন দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে দেশে গণতন্ত্রের প্রাতিষ্ঠানিক রূপদানে জনগণের অব্যাহত প্রচেষ্টার সার্বিক সাফল্য কামনা করেছেন। পাশাপাশি তিনি গণতন্ত্র ও অধিকার আদায়ের সব আন্দোলনে জীবন উৎসর্গকারী দেশপ্রেমিক শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

বিরোধীদলীয় নেত্রী তার বাণীতে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের এই দিনে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী এবং গণতন্ত্র হেফাজতকারী দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। পাশাপাশি এই আন্দোলনে আত্মদানকারী শহীদদের স্মৃতির প্রতি জানিয়েছেন গভীর শ্রদ্ধা।

দিবসটি উপলক্ষে আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি, কমিউিনিস্ট পার্টি বাংলাদেশ (সিপিবি)সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। বিএনপি ৬ ডিসেম্বর বিকেলে নয়াপল্টনের দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। এছাড়া স্বৈরাচার পতন দিবস উপলক্ষে সিপিবি পুরানা পল্টনের মুক্তি ভবনে আলোচনা সভা করবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।