বিচারকাজ বন্ধ করার একটি অংশ স্কাইপি হ্যাক: মাহবুবে আলম

ঢাকা, ১৩ ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)-বিচার কাজকে বাধাগ্রস্ত করে এমন কোন কথা তিনি বলেননি বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।বৃহস্পতিবার ট্রাইব্যুনাল-১ ও ২ এ সদ্য নিয়োগ পাওয়া বিচারপতিদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।মাহবুবে আলম বলেন, ‘এই বিচারকাজ বন্ধ করার জন্য একটি মহল শুরু থেকেই প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছে। এই স্কাইপি হ্যাক তার একটি অংশ।’তিনি বলেন, ‘এ বিচারকে বানচালের জন্য একটি মহল, একটি গোষ্ঠী দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র করছে। বিদেশি লবিস্ট নিয়োগ করে আসছে।’

নতুন করে বিচার শুরু করার দাবিকে ‘হাস্যকর’ উল্লেখ করে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘ফৌজদারী মামলার নিয়ম হচ্ছে যেখান থেকে শেষ হয়েছে, সেখান থেকেই শুরু হবে। তবে ট্রাইব্যুনাল সিদ্ধান্ত নেবে কোথা থেকে তারা বিচারকাজ শুরু করবেন।’

তিনি বলেন, ‘আইন অনুযায়ী নতুন করে বিচার শুরুর প্রয়োজন নেই। সমগ্র দেশের মানুষ এ বিচারের রায় দেখার জন্য অপেক্ষা করছেন।’

মাহবুবে আলম বলেন, ‘একজন বিচারপতি ব্যক্তিগতভাবে কথা বলতেই পারেন। তবে তার ব্যক্তিগত পাসওর্য়াড হ্যাকিংয়ের পিছনে যারা ছিলেন, তাদের বিষয় তদন্ত করা হবে। তদন্ত করে এদের বিচারের আওতায় আনা হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘একজন বিচারপতি তো মানুষ। তিনি ব্যক্তিগতভাবে কথা বলতেই পারেন। একজন লোকের ব্যক্তিগত অধিকার আমাদের সংবিধানের সংরক্ষিত আছে। তার সেটি ভঙ্গকারীরা অপরাধমূলক কাজ করেছেন।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মাহবুবে আলম বলেন, ‘রাও ফরমান আলীর সাথে গোলাম আযমের যে ছবি আছে, তাই তো তার বিচারের জন্য যথেষ্ট।’

বিচারপতির পদত্যাগে কি তার স্কাইপি কথা প্রমাণিত হয় না যে, তার কথা বলা অন্যায় ছিল- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আপনি কি একটি ঘটনা দিয়ে ১৯৭১ সালে সংঘটিত হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণসহ ৩০ লাখ শহীদের রক্তস্নাত ঐতিহাসিক ঘটনা ঢাকতে পারবেন।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।