দেশের ৪৫ বছরে ইতিহাসে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা, জনজীবন বিপর্যস্ত - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

দেশের ৪৫ বছরে ইতিহাসে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা, জনজীবন বিপর্যস্ত



নিউজ ডেক্স, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

রাজধানীসহ সারাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে চলেছে শৈতপ্রবাহ। তীব্র শীতে উত্তরাঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। দিনাজপুরে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৩.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। গত ৪৫ বছরে এটিই সবচেয়ে কম তাপমাত্রা। এর আগে ১৯৬৮ সালে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছিল।

আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, কমপক্ষে আরো পাঁচদিন থাকতে পারে শীতের এ দাপট। তাপমাত্রার আরো পতন আর শীতের প্রকোপ দুইই বাড়তে পারে আগামী দু’একদিনে। রাজধানী ঢাকায় বুধবার সকালে তাপমাত্রা ছিল ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মঙ্গলবারের তাপমাত্রার চেয়ে তা ২ দশমিক ৪ ডিগ্রি কম। বিভাগীয় শহরের মধ্যে বুধবার চট্টগ্রামে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৭ দশমিক ৬, রাজশাহীতে ৪ দশমিক ৪, খুলনায় ৭, বরিশালে ৬ দশমিক ৫, সিলেটে ৮ দশমিক ৪ ও রংপুরে ৪ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

মাত্র দু’সপ্তাহের ব্যবধানে সারাদেশে আবারো শৈতপ্রবাহ বইতে শুরু করেছে। তবে ডিসেম্বরের শেষদিকে বয়ে যাওয়া শৈতপ্রবাহের চেয়ে এবার শীতের তীব্রতা অনেক বেশি। হাড়কাঁপানো শীতের তীব্রতায় জনজীবন বিপর্যস্ত। দেশের উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মানুষেরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ছিন্নমূল মানুষেরা অতি কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন। কোথাও সারাদিনে সূর্যের মুখ দেখা যাচ্ছে না। অনেকেই খড়কুটোতে আগুন ধরিয়ে একটু উঞ্চতা লাভের চেষ্টা করছেন।

দিনভর ঝলমলে রোদ থাকলেও, তাপমাত্রার পতনে বিকাল গড়াতে তীব্র শীত অনুভূত হয় দেশজুড়ে। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকে তা অসহনীয় আকার ধারণ করেছে। আবহাওয়াবিদরা জানান, দিনের বেলায় বায়ুমণ্ডল তাপ শোষণ করে। রাতের বেলায় সঞ্চালন করে। তাই স্বাভাবিক সময়ে রাতে শীত কম অনুভূত হয়। এখন বায়ুমণ্ডলে তীব্র হিমেল হাওয়া থাকায় সূর্যাস্তের সঙ্গে সঙ্গে জাঁকিয়ে বসছে শীত।

শীত বাড়ায় বেড়েছে শীতজনিত রোগের প্রাদুর্ভাব। ফলে হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায়  শীতজনিত রোগে ঠাকুরগাঁও, পাবনা, কুড়িগ্রাম, চুয়াডাঙ্গার জীবননগর ও জামালপুরের বকশীগঞ্জে কমপক্ষে ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া তীব্র শীতে কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর, পঞ্চগড়, শেরপুর, গোপালগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় জনজীবনে স্থবিরতা নেমে এসেছে। কষ্টে আছেন নিম্ন আয়ের মানুষ।

এমাসে আরো এক থেকে দুটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। এসব শৈত্যপ্রবাহ দেশের উত্তর, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে বয়ে যেতে পারে। তাপমাত্রা থাকতে পারে ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।


পূর্বের সংবাদ